যাতায়াত ব্যবস্থা উন্নত হলেও থামছে না মৃত্যু

একটা সময় ঢাকা-ময়মনসিংহ যাতায়াত ব্যবস্থার দূরবস্থা থাকলেও, বিগত পাঁচ বছর ধরে সড়কটি ফোর লেন হওয়ায় উন্নত যাতায়াতের পাশাপাশি মানুষের জীবন ধারার পরিবর্তন এসেছে; কিন্তু সড়কে কোনোভাবেই কমছে না মৃত্যুর মিছিল।

সরকারি হিসাবে, চলতি বছরে ১৪৪টি দুর্ঘটনায় ৯২ জনের প্রাণ গেছে দেশের প্রথম এই চার লেনের মহাসড়কে। যত্রতত্র পার্কিং, অনিয়ন্ত্রিত গতি এবং সব ধরনের যান একই সড়কে চলা এসব দুর্ঘটনার কারণ বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

গাজীপুর হাইওয়ে পুলিশের অন্তর্ভুক্ত জয়দেবপুর থেকে ময়মনসিংহের ত্রিশাল পর্যন্ত মহাসড়কটির অবস্থান। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, তাদের আওতাধীন সড়কে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত ১৪৫টি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ৯৩ জনের। আহত হয়েছেন ১৮১ জন। তবে দুর্ঘটনায় মামলা হয়েছে ৪৯টি। জিডি হয়েছে ৯৬টি। ২০২০ সালে ২১১টি দুর্ঘটনায় এই সড়কে ৩৩১ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল।

হাইওয়ে পুলিশের গাজীপুর অঞ্চলের পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান বলেন, মহাসড়কে দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ হচ্ছে বিভিন্ন ফ্যাক্টরি। মহাসড়কের পাশে কোনো ফ্যাক্টরি থাকার নিয়ম নেই। রয়েছে মহাসড়কের ওপর বাজার, নেই তাদের গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা। তাহলে কেমনে প্রশাসন এগুলো অনুমোদন দেয় সেটা বোধগম্য নয়। ফ্যাক্টরির শ্রমিকদের কারণে গাড়ি চলাচল ব্যাহত হয়ে অনেক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। বড় গাড়ি ছাড়াও ব্যক্তিগত অনেক গাড়ি মহাসড়কে চলে, নেই ফুটপাত। মানুষ যত্রতত্র রাস্তা পার হচ্ছে। তবে এগুলো বাদেও ময়মনসিংহ মহাসড়কে দুর্ঘটনার বড় কারণ অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালানো। 

ময়মনসিংহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ ফোর লেন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়ার আগে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে তেমন ভাবা হয়নি। ফলে আজকে ফোর লেন দুই লেনে রূপান্তরিত হয়েছে। যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং, বাজার, ফ্যাক্টরি এবং মহাসড়কজুড়ে বালুবাহী ট্রাকের কারণে একদিকে ভাঙছে রাস্তা, অন্যদিকে ঘটছে দুর্ঘটনা। ১ হাজার ৮১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা হলেও অতিরিক্ত বালুবাহী ও মাছবাহী ট্রাকের কারণে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকাগামী লেনের বিভিন্ন অংশে ভাঙন দেখা দিয়েছে। আগামী বছর তা মেরামতের জন্য ৩৫ কোটি টাকার মতো বাজেট চাওয়া হয়েছে। অন্যথায় আরও দুর্ঘটনা ঘটবে। 

ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ ফোর লেনে দুর্ঘটনার প্রধান কারণ তিন চাকার বাহন। অনেক সময় এগুলো উল্টো পথে এলে দুর্ঘটনায় পড়ে। রয়েছে চালকদের দক্ষতার অভাব। দুর্ঘটনা কমাতে হলে মহাসড়কে তিন চাকার বাহন কোনোভাবেই চলতে দেওয়া যাবে না। 

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন (নিসচা) ময়মনসিংহের সভাপতি আবদুল কাদির চৌধুরী মুন্না বলেন, রাস্তায় খানাখন্দ, অটোরিকশা, অপ্রাপ্ত ও অদক্ষ লোক দিয়ে গাড়ি চালানো দুর্ঘটনার কয়েকটি কারণ। এ ছাড়াও ডিভাইডার এবং ইউটার্নগুলো পরিকল্পিত না হওয়ায় মৃত্যুর মিছিল বেড়েই চলেছে। 

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //