এমপি হতে চান জায়েদ খান

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন ও সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই আলোচিত সমালোচিত নায়ক জায়েদ খান। এবার আওয়ামী লীগের হয়ে সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার ইচ্ছে জানিয়ে ফের আলোচনায় তিনি।

সম্প্রতি তার এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তবে ভিডিওটি কবের তা নিশ্চিত করা যায়নি।

ভিডিওতে এ নায়ককে বলতে শোনা গেছে, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দলের অধীনে তিনি রাজনীতি করতে ইচ্ছুক, তা জাতীয় সংসদসহ যেকোনো পর্যায়ে হোক। দলের প্রয়োজনে কাজ করতে চান তিনি।

ভিডিওতে জায়েদ খান দাবি করেন, আওয়ামী লীগ করেন বলেই এফডিসিতে তাকে নিয়ে ষড়যন্ত্র ও প্রোপাগাণ্ডায় মেতেছেন স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির একটি দল।

জায়েদ খান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেভাবে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন, তার নৌকার ছোট্ট একজন কর্মী হিসেবে আমি এই রাজনীতিটা করতে চাই। ভবিষ্যতে যদি দল আমাকে প্রয়োজন মনে করে আমি তাদের হয়ে কাজ করব। ভবিষ্যতে যদি আমার দলের নেত্রী কিংবা নীতিনির্ধারকরা দেশের কোথাও সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচনের সুযোগ দেন কিংবা কোনো রাজনৈতিক পদবী দিতে চান তাহলে আমি সেখানে রাজনীতি করতে ইচ্ছুক।

আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তিনি নতুন নন বলে দাবি করেন জায়েদ খান।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগে আমি কোনো অনুপ্রবেশকারী নই। পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আমি ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া অবস্থায় রাজনীতি করেছি। বর্তমান সরকার আমাকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য নির্বাচিত করেছে। রাজনীতি করতে আমি খুব পছন্দ করি। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির চলতি বছরের নির্বাচনে নিপুণ আক্তারকে হারিয়ে জিতেও সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসতে পারছেন না তিনি।  বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য এখন আদালতের চূড়ান্ত রায়ের অপেক্ষায়। 

নির্বাচনের দিন থেকেই নানা অভিযোগ উঠেছে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে।  এ নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী নিপুণ আক্তারের সঙ্গে রীতিমত যুদ্ধ চলছে তার দীর্ঘ ২ মাসের বেশি সময় ধরে।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //