নওগাঁয় পরকীয়া সন্দেহে একজনকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

নওগাঁ সদর উপজেলার হাড়িয়াগাছি গ্রামে স্ত্রীর সাথে পরকীয়ার সন্দেহে তোফাজ্জল হোসেন ছকু নামের এক ব্যক্তিকে গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) রাত ১২টার দিকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় তোফাজ্জল হোসেন ছকুকে স্থানীয় দিলদার হোসেন ও তার লোকজন রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর করে।

তোফাজ্জল হোসেন উপজেলার দুবলহাটি ইউনিয়নের হাড়িয়াগাছি গ্রামের মোজাম্মেলের ছেলে। তিনি দুই সন্তানের জনক।

এ ঘটনায় নিহতের ভাই উজ্জ্বল হোসেন বাদী হয়ে আটজনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

স্থানীয় ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, তোফাজ্জল হোসেন গ্রামের হাড়িয়াগাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এমএলএসএস পদে চাকরি করতেন। তার সঙ্গে একই গ্রামের দিলদার হোসেনের স্ত্রীর পরকীয়া সম্পর্ক আছে বলে দিলদার ও তার পরিবারের লোকজন সন্দেহ করতেন। এই সন্দেহের বশে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে তোফাজ্জলকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যায় দিলদার ও তার লোকজন। এরপর তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়। পরে তারা তোফাজ্জলের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ এনে নওগাঁ সদর থানা পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ এসে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাকে গ্রহণ না করে হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শ দেয়। পরে তোফাজ্জলকে তার পরিবারের লোকজনের কাছে চিকিৎসার জন্য হস্তান্তর করে পুলিশ ফিরে যায়।

ছকুর পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে রাতে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে। পরদিন বুধবার সন্ধ্যা থেকে ছকুর অবস্থার আরো অবনতি হতে থাকে। রাত ১২টায় নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে চিকিৎসরকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে তোফাজ্জলের মৃত্যুর খবর জানাজানি হওয়ার পর থেকে দিলদার হোসেন ও অন্যরা পলাতক রয়েছে। তাদের বাড়িঘর এখন তালাবদ্ধ।

এ ব্যাপারে নওগাঁর পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান মিয়া জানান, কোনো অসামাজিক কার্যক্রম থাকলে সে ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রয়োজন। আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া অপরাধ। এ ব্যাপারে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের তৎপরতা ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। অবিলম্বে তাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh