চিনিকল ফেডারেশনের ৫ দফা বাস্তবায়নের দাবি

চিনিকলসমূহ বন্ধের সরকারি পরিকল্পনার প্রতিবাদে বাংলাদেশ চিনিশিল্প কর্পোরেশন শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশন ও বাংলাদেশ চিনিকল আখচাষি ফেডারেশন কর্তৃক ঘোষিত ৫ দফা দাবিতে চুয়াডাঙ্গার কেরু এ্যান্ড কোম্পানি চিনিকলে গেইট মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২১ নভেম্বর) সকালে কেরু শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের আয়োজনে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা কেরু এ্যান্ড কোম্পানির মিল গেইটের কেন কেরিয়ারে অনুষ্ঠিত হয়।

কেরু এ্যান্ড কোস্পানি চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ও বাংলাদেশ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সহ-সাধারণ সম্পাদক তৈয়ব আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত গেইট মিটিংয়ে বক্তব্য রাখেন- কেরু এ্যান্ড কোস্পানি চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি মাসুদুর রহমান, দর্শনা আখচাষি কল্যাণ ফেডারেশনের সহ-সভাপতি ওমর আলী ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী, কেরু এ্যান্ড কোস্পানি চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সহসভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক খবির উদ্দিন, শ্রমিক নেতা ফিরোজ আহম্মেদ সবুজ।

কেরু এ্যান্ড কোস্পানি চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি মাসুদুর রহমান বলেন, গেইট মিটিংয়ের মাধ্যমে প্রতিবাদ কর্মসূচি শুরু হলো। ২৮ নভেম্বর শনিবার স্ব-স্ব চিনিকল এলাকায় আখচাষি ও শ্রমিক-কর্মচারীদের সমন্বয়ে মানববন্ধন, প্রত্যেকটি চিনিকল এলাকায় পোস্টার, ব্যানার ও লিফলেট বিতরণ, একই সঙ্গে ১৫টি চিনিকলে মাড়াই মৌসুমের তারিখ নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত কোন চিনিকলের বয়লার স্লো ফায়রিং করা যাবে যাবে না। এছাড়া গেইট মিটিং থেকে ৫ দফা দাবি বাস্তবায়নের বিষয়ে জানানো হয়।

এগুলো হলো- চিনিকলে নিয়োজিত শ্রমিক-কর্মচারীদের ৫-৬ মাসের বকেয়া বেতনসহ সকল পাওয়নাদি এবং অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের গ্রাচ্যুইটির টাকা পরিশোধ, চিনিকল বন্ধের প্রক্রিয়া বাতিল, আসন্ন মাড়াই মৌসুম (২০২০-২০২১) পূর্বে যাবতীয় মালামাল সরবরাহ করতে হবে, আখ উৎপাদনের স্বার্থে সার, বীজ ও কীটনাশকসহ জরুরি উপকরণসমূহ সরবরাহ করতে হবে ও আখচাষিদের আখের বকেয়া মূল্য পরিষদ করতে হবে।    

কেরু এ্যান্ড কোস্পানি চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ও বাংলাদেশ চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সহ-সাধারণ সম্পাদক তৈয়ব আলী বলেন, চিনি শিল্প গুলো সরকারের সিদ্ধান্তের কারণে আরো সমস্যায় নিমজ্জিত হচ্ছে। বিভিন্ন ভুল সিদ্ধান্ত চিনিকল শ্রমিক-কর্মচারীদের ওপর চাপিয়ে চিনিকল বন্ধের পায়তারা করা হচ্ছে। যা আমাদের জন্য দুর্বিসহ পরিবেশ তৈরি করেছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh