‘নারীরা কর্মক্ষেত্রেও মজুরি বৈষম্য ও শোষণ-বঞ্চনার শিকার’

দেশে উন্নয়নের যে ধারা অব্যাহত আছে, তার অন্যতম কারণ হলো উন্নয়নের সর্বক্ষেত্রে নারীর সমঅংশগ্রহণ। কিন্তু আজও নারীদের ঘরে-বাইরে অবদানের যথাযথ স্বীকৃতি মেলেনি। তারা একদিকে যেমনি কর্মস্থলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগে, আরেকদিকে মজুরি বৈষম্যসহ নানান শোষণ-বঞ্চনার শিকার হচ্ছে। এছাড়া উগ্রধর্মীয় মৌলবাদীরাও নারী বিদ্বেষী নানান অযৌক্তিক, অসাংবিধানিক দাবি তুলে সমাজে নারীর অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করার পায়তারা করছে।’

রবিবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে আন্তর্জাতিক নারী মানবাধিকার রক্ষাকর্মী দিবসের এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন পাহাড়ের নারীনেত্রীরা। 

রাঙ্গামাটির স্থানীয় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এনজিও) প্রোগেসিভ’র আয়োজনের প্রতিষ্ঠানটির নিজ কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রোগেসিভ’র নির্বাহী পরিচালক সুচরিতা চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন- রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শহীদুজ্জামান মহসীন রোমান। সভায় আরও বক্তব্য দেন, সিএইচটি এক্টিভিস্ট ফোরামের উপদেষ্টা ও নারীনেত্রী টুকু তালুকদার, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রাক্তন সদস্য ও শিক্ষাবিদ নিরূপা দেওয়ান, নারীনেত্রী নুকু চাকমা, উন্নয়নকর্মী বিপ্লব চাকমা, সুব্রত খীসা ও সুপ্তি দেওয়ান প্রমুখ।

সভায় নারীনেত্রীরা বলেন, ‘দেশের অর্থনৈতিক বিকাশের পাশাপাশি সামাজিক বিকাশ সমভাবে না হওয়ায় নারীর প্রতি প্রচলিত দৃষ্টিভঙ্গিরও পরিবর্তন হয়নি। তাই প্রতিনিয়ত সহিংসতার ঘটনা ঘটছে, লঙ্ঘিত হচ্ছে মানবাধিকার। নারীর অগ্রগতি তথা উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হলে নারীর প্রতি সহিংসতা কঠোর হস্তে দমন করতে হবে। এর জন্য সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ প্রয়োজন।’

এর আগে সকালে ‘নারীর জন্য বিশ্ব গড়ো, পর্যাপ্ত বিনিয়োগ করো, সহিংসতা প্রতিরোধ করো’ এই প্রতিপাদ্যে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মৌন মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন সংগঠন। মানববন্ধনে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি সম্বলিত পোস্টার, ফেস্টুন, ব্যানার হাতে নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেছেন।


মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh