কক্সবাজারে মিনিবাস উল্টে একজন নিহত

কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের কাইম্যার ঘোনা স্টেশন এলাকায় যাত্রীবাহী মিনিবাস উল্টে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।

আচমকা সড়কের মাঝখানে চলে আসা বেপরোয়া মোটর সাইকেলের সাথে ধাক্কা খেয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি উল্টে সড়কের কিনারে চলে গিয়ে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এসময় আরো অন্তত ২১ জন কমবেশি আহত হয়েছেন।

রবিবার (২৯ নভেম্বর) সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মো. নুরুল ইসলাম (৫৫) উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সিকদারবিলের মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে।

আহতরা হলেন- বাইক আরোহী সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের হাজীপাড়ার শামসুল আলমের ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৬), গুরা মিয়ার ছেলে ওসমান গণি (২৭), মিনিবাস যাত্রী উখিয়া উপজেলার টেংখালীর মৃত সাব্বির আহমদের ছেলে সৈয়দ হোসেন (৩৫), মো. আবুল কাসেম (৪৫), তুতুরবিলের মো. আব্দুল গণির ছেলে বেলাল (১৮), রাজাপালংয়ের জয়নাল উদ্দিন (২৫)। বাকিদের নাম পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সমাজকর্মী মুহাম্মদ ফারুক প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, সড়কে কক্সবাজার-উখিয়া চলাচলকারী সী-লাইন পরিবহনের একটি বাস (কক্স-ছ-১১-০১০১) যাত্রী নিয়ে উখিয়া থেকে কক্সবজার যাচ্ছিল। রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ির কাইম্যারঘোনা স্টেশন এলাকায় পৌছামাত্র আচমকাই একটি পালসার মোটর সাইকেল (কক্স-ল-১১-৭৫৯৬) রাস্তার মাঝে চলে এলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটর সাইকেলের সাথে ধাক্কা লেগে বাসটি উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় সী-লাইনে থাকা উখিয়ার নুরুল ইসলামের। আহত হন বাইকের দুই আরোহীসহ সী-লাইনে থাকা যাত্রীরা। স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহতদরে উদ্ধার করে চেইন্দা হোপ হসপিটাল ও কক্সবজার সদর হাসপাতালে নেয়। এদের মাঝে আশংকাজনক অবস্থায় বাইক আরোহী দুইজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রামু হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটি জব্দ করা হয়েছে। মরদেহটি হস্তান্তর করা হয়েছে রামু থানায়। আহতদের মাঝে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জেনেছি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh