দেবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেন্ডারে অনিয়মের অভিযোগ

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. হাসিনুর রহমানের বিরুদ্ধে টেন্ডারে অনিয়ম করার অভিযোগ উঠেছে।

৩৮ লাখ টাকার টেন্ডারে সিডিউল দাখিলের শেষ সময় ছিল গতকাল মঙ্গলবার। এর আগে ১৪ ডিসেম্বর দুপুর দেড়টা পর্যন্ত সিডিউল বিক্রির শেষ সময় ছিল। মোট ৫৭ টি সিডিউল বিক্রি হলেও মঙ্গলবার টেন্ডার ড্রপের দিন মাত্র ৩৬টি সিডিউল ড্রপ করা হয়। সকাল ৯টায় টেন্ডার ড্রপের সময় থাকলেও তার আগেই স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. হাসিনুর রহমানের যোগসাজশে সবার অগোচরে ৬টি সিডিউল ড্রপ করা হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে ওই ৬টি সিডিউল সরিয়ে ফেলে পুনরায় টেন্ডার ড্রপের জন্য বাক্স সিলগালা করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ঠিকাদার দাবি করেন, তারা সিডিউল ক্রয় করলেও টেন্ডার ড্রপ করতে পারেননি। এছাড়াও কয়েকজন ঠিকাদারের সঙ্গে সমঝোতা করারও অভিযোগ রয়েছে। এতে করে সরকার রাজস্ব হারাতে বসেছে। অধিকসংখ্যক ঠিকাদার টেন্ডার ড্রপ করতে পারলে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সর্বনিম্ন দরদাতাকে কাজটি প্রদান করা যেত। টেন্ডার ড্রপে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকায় এ কাজের নির্ধারিত ব্যয়ের চেয়ে অতিরিক্ত ব্যয় হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে হাসিনুর রহমান জানান, কীভাবে নির্দিষ্ট সময়ের আগে বাক্স সিলগালা করার আগে টেন্ডার ড্রপ করা হয়েছে, সে ব্যাপারে আমি অবগত নই। টেন্ডার ড্রপের বাক্স তদারকির দায়িত্বে অ্যাকাউন্টেন্ট ও অন্য আরেকজন স্টাফ ছিলেন। আমি ইতিমধ্যে তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছি।

সিভিল সার্জন ফজলুর রহমান জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এই ব্যাপারে সেখানাকার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। ওনার কাছেই আপনি বক্তব্য নিন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh