নেট হাউস পদ্ধতিতে সবজি চাষ

ধামরাই উপজেলায় নেট হাউস পদ্ধতিতে জৈব সার ব্যবহার করে বিষমুক্ত সবজি চাষে কৃষকদের ব্যাপক আগ্রহ বাড়ছে। এতে কৃষকরা বেশ লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন। 

বিভিন্ন কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার সানোড়া ইউনিয়নের প্রায় ১ শত একর জমির ওপর নেট হাউস এবং জৈব বালাই ব্যবহার করে বিষমুক্ত সবজির চাষ করা হয়েছে। এ পদ্ধতিতে সবজি চাষের জন্য সবজির বীজ, জৈব সার, বালাই নাশক বিষ প্রদান করা হয়েছে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে। কৃষকরা ঠিক মতো সবজি চাষ করতে পারলে পূর্বের তুলনায় অনেক বেশি লাভবান হবে। 

উপজেলার সানোড়া গ্রামের কালু বেপারীর ছেলে আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা বিষমুক্ত কপি আগাম চাষ করে বেশ লাভবান হয়েছি। পূর্বের বছরের চেয়ে এবারের বিষমুক্ত সবজির চাহিদা অনেক বেশি। মানুষ এখন অনেক সচেতন, টাকা একটু বেশি লাগলেও ভালো জিনিসের প্রতি চাহিদা বেশি। আমাদের বিষমুক্ত সবজি চাষ করতে যাবতীয় সহায়তা করছে উপজেলা কৃষি অফিস। সব কিছুর ব্যবস্থা করে দিয়েছে কৃষি অফিস। আমাদের একটি টাকাও লাগেনি।

তিনি আরও বলেন, নিয়মিত আমাদের ২৫ কৃষকের একটি করে টিম তৈরি করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে কৃষি অফিস। এখানে নারী-পুরুষ একসঙ্গে প্রশিক্ষণ নিয়েছি। নিয়মিতভাবে উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আরিফুল হাসান ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. রোস্তম আলী আমাদের সবজি চাষের তদারকি করে থাকেন, সবজির ক্ষেত দেখতে আসেন। কোনো সমস্যা হলে তাৎক্ষণিক সমাধানের ব্যবস্থাও করে থাকেন।

সানোড়া ইউনিয়নের বাসনা গ্রামের কৃষক মোশাররফ হোসেন বলেন, এখন উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিয়ে সবজি চাষ করে উৎপাদন বেশ ভালো হচ্ছে। ২০ বছর ধরে সবজি চাষ করে আসছি। আমার পরিবার পুরোপুরি সবজি চাষের ওপর নির্ভরশীল। আগে সবজি নষ্ট হয়ে যেত, বুঝতে পারতাম না কোনটা আগাম জাতের, এখন উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিয়েছি। সবজি চাষে কোনো সমস্যা হয় না। কপি তোলা শেষ হয়েছে, এখন বেগুন, লালশাক আগাম লাগিয়েছি। এ বিষয়ে সোমভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আজাহার আলী বলেন, আমার আড়তে দুটি দোকান রয়েছে যেখানে বিষমুক্ত সবজি বিক্রি করা হয়। কোনো কৃষক তার সবজি নিয়ে ফিরে যায় না। চাহিদাও প্রচুর। 

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল হাসান বলেন, পরিবেশ বান্ধব পদ্ধতিতে নিরাপদ সবজি উৎপাদন প্রকল্পের আওতায় আইপিএম মডেল ইউনিয়নের ৫ শত কৃষক-কৃষাণীর মাধ্যমে বিষমুক্ত নিরাপদ সবজি উৎপাদন করা হচ্ছে। এখানে লাল শাক, মূলা শাক, টমেটো, ফুলকপি, বাধাকপি, মরিচ, বেগুন, স্কোয়াশ, চিচিঙ্গা, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, ধুন্দুল, ঝিঙা, শসা প্রভৃতি সবজির বীজ, জৈব সার, জৈব বালাই নাশক, নেট হাউস এবং জৈব বালাই ব্যবহারের মাধ্যমে সম্পূর্ণ জৈব পদ্ধতিতে সবজি উৎপাদন করা হচ্ছে। ঢাকার তাজিজ অনলাইন মার্কেটের মাধ্যমে এবং মানিক মিয়া এভিনিউতে ফার্মারস মার্কেটে সকল নিরাপদ সবজি বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নিরাপদ সবজি উৎপাদনের বিশাল অংশই ধামরাই উপজেলার সানোড়া ইউনিয়নের কৃষকরা জোগান দিতে পারবে। 

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh