কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করায় ১৪ ব্যবসায়ীকে অর্থদণ্ড

কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করায় বরিশালে ১৪ ব্যবসায়ীকে অর্থদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ছবি: বরিশাল প্রতিনিধি

কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করায় বরিশালে ১৪ ব্যবসায়ীকে অর্থদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ছবি: বরিশাল প্রতিনিধি

তরমুজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে অবশেষে অভিযান শুরু করেছে বরিশাল জেলা প্রশাসন। গতকাল সোমবার (২৬ এপ্রিল) অভিযানের প্রথম দিনেই ওজন দিয়ে অতিরিক্ত দামে তরমুজ বিক্রির অপরাধে বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে। 

এসময় পিস হিসেবে তরমুজ কিনে অধিক মূল্যে কেজি হিসেবে বিক্রি করায় ১৪ ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এ অভিযানের খবরে সাধারণ মানুষের মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে।

কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারসাজিতে তরমুজ কেনা সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে গেছে। কারণ হিসেবে দেখা যায়- ব্যবসায়ীরা তরমুজ কম দামে পিস হিসেবে কিনলেও ভোক্তা পর্যায়ে তা কেজি হিসেবে বিক্রি করেন। তারা প্রতি কেজি তরমুজ ৫০-৬০ টাকা করে প্রতিটি তরমুজের মূল্য ৪০০-৫০০ টাকা দাবি করে বসে থাকেন। যার ফলে সাধারণ মানুষের তরমুজ ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে।

এ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়ে আসছিল। যা নজরে আসে বরিশাল জেলা প্রশাসনের। এর পরপরই তরমুজের বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ দেন বরিশালের জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বিকালে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম বাড়ৈর তত্ত্বাবধানে বাজার মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নগরীর বিভিন্ন বাজারে পৃথক দুটি মোবাইল কোর্ট টিম অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানকালে অভিযোগের সত্যতা পান তারা।

বরিশাল জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেল থেকে জানানো হয়েছে, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল হাই ও রায়া ত্রিপুরার নেতৃত্বে নগরীর পোর্ট রোড, ফলপট্টি, জেলাখানার মোড়, নতুন বাজার, নথুল্লাবাদ, চৌমাথা বাজার ও বাংলাবাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়।

এসময় বাজারে বাজারে অবস্থানরত ক্রেতাদের অভিযোগের ভিত্তিতে কেজি হিসেবে তরমুজ বিক্রির অপরাধে আট ব্যবসায়ীকে ছয় হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হাইয়ের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

একই সময় অপর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রায়া ত্রিপুরার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত ছয় তরমুজ ব্যবসায়ীকে আরো তিন হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করেছে। পাশাপাশি ন্যায্যমূল্যে সাধারণ ক্রেতাদের কাছে তরমুজ বিক্রি করার বিষয়ে সকল ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুরু হওয়া এ অভিযানে জনস্বার্থে অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন দুই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। মোবাইল কোর্ট অভিযানে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সহযোগিতা করে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের পৃথক দুটি টিম।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh