বান্দরবানে আগুনে পুড়েছে ৭০টি ঘর

বান্দরবানে ভয়াবহ আগুনে পুড়েছে ৭০টি বসত ঘর। সোমবার রাতে রোয়াংছড়ির তারাছা ইউনিয়নে তালুকদার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানান স্থানীয়রা।

তারাছা ইউপি চেয়ারম্যান উথোয়াইচিং মারমা জানান, সোমবার রাত ১টার দিকে পাড়ার মাঝখানে একটি বাড়িতে হঠাৎ আগুন লাগলে তা দ্রুত আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ৭০টি বাড়িঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। 

তিনি বলেন, ঘরগুলো খুব কাছাকাছি ও ঘন বসতি হওয়ার কারণে তাৎক্ষণিকভাবে ভস্মীভূত হয়ে যায়। তবে এ ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো পাড়ার সরকারি প্রাইমারি স্কুলে এবং এর পাশে একটি খোলা মাঠে তাবু খাটিয়ে মাথা গোঁজার ব্যবস্থা করে নিয়েছে।

এ পাড়ার বাসিন্দা চাইহ্লাউ মারমা ও মংহাই মারমা জানান, গভীর রাতে আগুন লাগলে কিছু বুঝে উঠার আগেই ঘরগুলো দ্রুত পুড়ে যায়। ঘরগুলো বেশিরভাগ গাছ ও বাঁশের তৈরি মাচাং ঘর। কিছু ঘর রয়েছে সম্পূর্ণ কাঠের তৈরি। এ কারণে ঘরগুলো দ্রুত পুড়ে যায়।

হ্লামাচিং মারমা জানান, আগুন লাগার সাথে তাড়াহুড়ো করে বাচ্চাদের কোলে নিয়ে বের হওয়ায় ঘরের কোনো জিনিসপত্র বের করতে পারেননি। ক্ষতিগ্রস্তদের সবাই নিঃস্ব হয়ে পড়েছে।


এদিকে পাড়াপ্রধান কারবারি মংপু মারমা জানান, ৮৯টি পরিবারে মধ্যে ৭০টি বসত ঘর সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়। পাড়া থেকে কিছু দূরে হওয়ায় ১৯টি ঘর রক্ষা পায়। তবে এ পাড়াটি অন্তত দেড়শ বছরে পুরনো বলে জানান তিনি।

পাড়ার কাছাকাছি একটি অসম্পূর্ণ ব্রিজের কারণে খবর পাওয়ার সাথে ঘটনাস্থলে পৌঁছেও কোনো কাজ করতে পারেননি বলে জানান রোয়াংছড়ি ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন মাস্টার মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, পাড়ার কাছে এসে একটি অসম্পূর্ণ ব্রিজের কারণে ফায়ার সার্ভিসের দল আটকে যায়। পাড়ায় আর ঢুকতে পারিনি।  ফায়ার সার্ভিসের দল কাজ করতে পারলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক কমে যেত।

রোয়াংছড়ি ইউএনও আব্দুল্লাহ আল জাবেদ জানান, জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত ৭০টি পরিবার প্রতি নগদ তিন হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে ৩০ কেজি চাল এবং দুই বান্ডিল করে ঢেউটিন দেয়া হবে।

এছাড়া মুজিব বর্ষ উপলক্ষে ক্ষতিগ্রস্তদের ঘর তৈরি করে দেবার ব্যবস্থাও করা হবে জানান তিনি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh