সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরায় ৮ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার ৪৫.০২%

পুলিশ মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে। ছবি : সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

পুলিশ মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে। ছবি : সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরায় প্রতিদিনই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মোট আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে একজন ও উপসর্গ নিয়ে সাতজন মারা গেছেন।

এসময়ে জেলায় ১৭১ জনের নমুনা পরীক্ষা শেষে ৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৪৫ দশমিক ০২ শতাংশ। এনিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হলো ৩ হাজার ৬৭ জন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকালে সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. হুসাইন সাফায়াত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলায় এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন মোট ৬৩ জন। আর উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন অন্তত ২৮৯ জন।

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (সামেক) তত্ত্বাবধায়ক ডা. কুদরত-ই-খুদা বলেন, প্রতিদিনই নতুন রোগী ভর্তি হচ্ছে জেলার হাসপাতালগুলোতে। বর্তমানে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ৩৯১ জন করোনা ও করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ৪১ জন পজেটিভ রোগী ও বাকিরা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন। এছাড়া হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরো ৭৮৬ জন।

করোনা সংক্রমণ রোধে তিনি সবাইকে মাস্ক পরার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানান।

এদিকে চলমান লকডাউনের ২০তম দিনেও সাতক্ষীরায় স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বালাই নেই সাধারণ মানুষের মাঝে। চলছে ঢিলেঢালা লকডাইন। শহরের অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ থাকলেও হাট-বাজারগুলোতে মানুষের ভিড় লক্ষণীয়।

তবে পুলিশ মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে ও সাধারণ মানুষ যাতে বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে না আসেন সেজন্য সচেতনতামূলক প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। একই সাথে যারা বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে আসছেন ও স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে জরিমানা করা হচ্ছে। জব্দ করা হচ্ছে মটরসাইকেল, ভ্যান ও ইজিবাইক। 

চলমান লকডাউন গ্রামেগঞ্জে তেমন মানা হচ্ছে না। তবে করোনা সংক্রমণ কমাতে হলে লকডাউন কঠোর হওয়া দাকার বলে মনে করেন সুশীল সমাজ।

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, লকডাউনে মাস্ক পরা, সামাজিক দুরুত্ব মেনে চলা ও ঘরের বাইরে না আসার জন্য সচেতনতামূলক প্রচার চালানো হচ্ছে। একই সাথে যারা বিনাপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে আসছেন তাদের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করে জরিমানা ও গাড়ি জব্দ করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh