পটুয়াখালীতে যুবলীগের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ আহত ৫

হামলায় আহতরা

হামলায় আহতরা

পটুয়াখালীতে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে ফেরার পথে যুবলীগের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ পাঁচ কর্মী-সমর্থক আহত হয়েছেন। আহতরা বর্তমানে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। ঘটনার সাথে জড়িত নৌকার প্রার্থীর ছোট ভাই পৌর কাউন্সিলর রেজাউল করিমকে আটক করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) রাতে শহর সংলগ্ন লোহালিয়া খেয়াঘাটের পূর্বপ্রান্তে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ- এমন দাবী করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান। 

আহতরা হলেন- সদর উপজেলার লোহালিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস প্রতীক) মো. জুয়েল মৃধা (৩৮), তার কর্মী আজাদ শিকদার (৪৫) (রুহুল লাহী (৩৫) রিয়াজ হাওলাদার (২৪) এবং মো. সোহাগ। 

হামলাকালে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যবহৃত অন্তত ১৫টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে তা নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। 

আহত স্বতন্ত্র প্রার্থী জুয়েল মৃধা বলেন- শুক্রবার তার এলাকার নির্বাচনী প্রচারণা শেষে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শহরের দিকে ফিরছিল। লোহালিয়া খেয়াঘাটে পৌঁছে খেয়ার জন্য অপেক্ষা করলে লোহালিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কুল্লে আলম ফকিরের নেতৃত্বে অন্তত ৫০ জনের একটি বাহিনী লাঠিসোটা নিয়ে তাদের উপর আকস্মিক হামলা চালায়। এসময় জুয়েলসহ ওই পাঁচজন আহত হয়। বাকীরা স্থানীয় নদীতে লাফ দিয়ে এবং দৌড়ে হামলা থেকে রক্ষা পায়। হামলাকালে নৌকার প্রার্থী কবির তালুকদার ও তার ছোট ভাই রেজাউল হাসান লাবু ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে হামলার ইঙ্গিত দেয় বলে দাবি করেন আহতরা। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় জুয়েলসহ আহতরা পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পৌঁছে চিকিৎসা নেয় এবং পুলিশকে অবহিত করে।

হামলার খবর পেয়ে সদর থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের পৃথক দল লোহালিয়া ইউনিয়নে মহড়া দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত রাখার চেষ্টা করে। গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মো. শাহজাহান মিয়া বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে নৌকা প্রার্থীর ছোট ভাই পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. রেজাউল করিম লাবুকে আটক করা  হয়েছে। 

এদিকে নৌকার প্রার্থী মো. কবির তালুকদার বলেন, লোহালিয়া ঘাট সংলগ্ন এলাকায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্পে স্বতন্ত্র প্রার্থী জুয়েলসহ তার কর্মীরা প্রবেশ করে ভাংচুর করছিল। এসময় স্থানীয়দের সাথে মারামারি হয়। এ খবর শুনে আমার ছোট ভাই কাউন্সিলর লাবু সেখানে গেলে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। 

অপরদিকে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কুল্লে আলম ফকিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে। 

এ প্রসঙ্গে লোহালিয়া ইউনিয়নে দায়িত্বরত বিট পুলিশিং অফিসার উপ পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র বলেন, রাত সোয়া ৭টার দিকে লোহালিয়া খেয়াঘাট এলাকায় নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে শ্লোগান পাল্টা শ্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর জুয়েলসহ উভয়পক্ষের কয়েকজন আহত হবার খবর পাওয়া গেছে। 

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, হামলার ঘটনায় অভিযান চলছে। জনগণের জানমাল রক্ষা ও ভোটারদের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ কঠোর অবস্থানে আছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //