সিলেটে রেস্টুরেন্ট মালিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের আশ্বাসে সিলেটে ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিয়েছেন রেস্টুরেন্ট মালিক শ্রমিকরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট ক্যাটারার্স ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শান্ত দেব। 

তিনি বলেন, প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের হস্তক্ষেপে আমরা রেস্টুরেন্ট মালিকরা ধর্মঘটসহ সবধরণের আন্দোলন কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছি। আজ বুধবার (৩ নভেম্বর) সকাল থেকে সিলেটের সবকটি রেস্টুরেন্ট খোলা রয়েছে।

এর আগে সিলেটের তিনটি রেস্টুরেন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) বিকেলে সিলেট জেলার সব রেস্টুরেন্টে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া হয়। 

ধর্মঘট আহ্বানের পর রাতেই সিলেটের প্রশাসনের কর্মকতারা কথা বলেন রেস্টুরেন্ট মালিকদের সাথে। আওয়ামী লীগ নেতাদের পক্ষ থেকেও তাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়। এসময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলে ধর্মঘট থেকে সরে আসেন রেস্টুরেন্ট মালিকরা।

এ ব্যাপারে শান্ত আরও দেব বলেন, প্রশাসন ও আওয়ামী লীগ নেতারা আশ্বস্ত করেছেন রেস্টুরেন্ট মালিকদের কোনভাবেই আর হয়রানি করা হবে না। যেসব দাবিতে ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছিল, সেগুলো মেনে নেয়ারও আশ্বাস দিয়েছেন তারা। তাই কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে সব রেস্টুরেন্ট খুলেছে।

তবে বিকালে ধর্মঘট আহ্বানের পর মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকেই বন্ধ ছিলে সিলেটের বেশিরভাগ রেস্টুরেন্ট। এতে দুর্ভোগে পড়েন নগরবাসী।

মঙ্গলবার দুপুরে নগরের জিন্দাবাজার এলাকার ভোজনবাড়ি রেস্টুরেন্টে অভিযান চালায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানকালে পঁচাবাসি খাবার পরিবেশন, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ব্যবসা পরিচালনার লাইসেন্স না থাকার দায়ে রেস্টুরেন্টটি সিলগালা করা হয়। এসময় রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার ও সুপারভাইজারকে আটক করে নিয়ে যায় র‌্যাব।

এরপর অভিযান চালানো হয় একই এলাকার পানসী ও পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে। পচাবাসি খাবার পরিবেশন ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের দায়ে রেস্টুরেন্ট দুটিকে ৮০ হাজার টাকা করে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এর প্রতিবাদে বিকেল ৫টায় নগরীর জিন্দাবাজার পয়েন্টে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন রেস্টুরেন্ট মালিক ও কর্মচারীরা। এসময় অভিযান বন্ধ, সিলগালাকৃত রেস্টুরেন্ট খুলে দেয়া ও আটক কর্মচারীদের মুক্তির দাবিতে বুধবার থেকে ধর্মঘটের ডাক দেন রেস্টুরেন্ট মালিক ও শ্রমিকরা। এছাড়া বুধবার দুপুর ১২টায় শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচি ও প্রতিবাদ সমাবেশেরও ডাক দেয়া হয়। তবে প্রশাসনের আশ্বাসে ধর্মঘটের পাশাপাশি প্রতিবাদ সমাবেশও প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। -ইউএনবি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //