চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে সৌদিতে নারী পাচার

চাকরি দেওয়ার কথা বলে এক নারীকে সৌদি আরবে পাচার ও বিক্রির অভিযোগে চারজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

গতকাল সোমবার (২৩ মে) বরিশালের মানবপাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. মনজুরুল ওই নির্দেশ দেন। এর আগে গত রবিবার (২২ মে) মামলাটি দায়ের করেন বরিশাল সদর উপজেলার ৮নং গুচ্ছ গ্রামের (উত্তর) অধিবাসী মমতাজ বেগম।

আসামিরা হলেন- বরিশাল নগরীর পলাশপুর গুচ্ছ গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী লাকি বেগম, তার ছেলে আজমান, ঢাকা নয়াপল্টনের আজিজ অ্যান্ড রিক্রুটিং এজেন্সির ডিরেক্টর কাজী আতাহার হোসেন, অফিস এক্সিকিউটিভ আনোয়ার হোসেনসহ অজ্ঞাতনামা চার-পাঁচজন।

বাদী মামলায় উল্লেখ করেছেন, ‘তার মেয়ে কহিনুর বেগমকে (৩৩) চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ২০২২ সনের ৪ এপ্রিল আজিজ অ্যান্ড রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে সৌদি আরব পাচার করে। সেখানে তাকে অফিসে কাজ না দিয়ে স্থানীয় এক দালালের নিকট  বিক্রি করে দেয়। ওই দালাল কহিনুরের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। বর্তমানে তাকে সৌদি আরবের জেদ্দায় আল সাদা নামক শহরের একটি কক্ষে তালাবন্ধ অবস্থায় আটকে রাখা হয়েছে।’

মামলায় আরো উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৪ এপ্রিল ফোনে বাদীকে অর্থাৎ মা মমতাজ বেগমকে ফোন করে বিস্তারিত ঘটনা জানায়। এরপর মমতাজ বেগম আসামিদের সাথে যোগাযোগ করলে এক লাখ ২০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিলে মেয়েকে ফেরত দেওয়া হবে বলে আসামিরা জানায়। 

এ ব্যাপারে মামলা করলে বিচারক সোমবার মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //