রাজশাহীতে যুবক হত্যায় প্রেমিকা-বান্ধবী গ্রেপ্তার

রাজশাহীতে রাতে দেখা করতে গিয়ে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানালে শ্বাসরোধ করে হত্যা ও লাশ গুমের ঘটনায় গৃহকর্মী প্রেমিকা ও তার বান্ধবীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  

গতকাল বুধবার (১৫ জুন) সকাল পৌনে ১০ টায় নগরীর সায়েরগাছার বুলবুল আহম্মেদের বাড়ি থেকে আসামি মেরিনাকে আটক করা হয়। এরপর পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে আসামির দেয়া তথ্যে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে আসামিদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।  

আসামিরা হলেন- রাজশাহী নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার সায়েরগাছার মো. একরামুল ইসলাম ভাদুর মেয়ে মেরিনা খাতুন (২১) ও তার বান্ধবী একই এলাকার ঈশা হকের মেয়ে নেশা খাতুন (২২)।

মৃত যুবকের নাম রশিদুল মন্ডল (২৫)। তিনি নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর থানার পয়লান গ্রামের জহির মন্ডলের ছেলে। তিনি পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, রশিদুল মন্ডল মাঝে মাঝে ধান কাটাসহ অন্যান্য কাজের জন্য রাজশাহীতে আসতো। এই সুবাদে প্রায় এক বছর আগে আসামি মেরিনা খাতুনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। মেরিনা খাতুন সায়েরগাছার বুলবুল আহম্মেদের বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করতো। ১৪ জুন রাতের রশিদুল সায়েরগাছার বুলবুলের বাড়িতে মেরিনার সাথে দেখা করতে যান। সেখানে মেরিনা কথা-বার্তার একপর্যায়ে রশিদুলকে বিয়ের কথা বলে। রশিদুল পরিবারের সাথে কথা বলে পরে জানাবে বলে জানায়। কিন্তু মেরিনা রাতেই বিবাহ করার জন্য চাপ দেয়। রাত ১১ টায় রশিদুল সেখান থেকে চলে যেতে চাইলে মেরিনা তাকে বাধা দেয় এবং উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে মেরিনা খাতুন ধাক্কা দিয়ে রশিদুলকে ফেলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে উঠার আগেই পরদিন সকাল ৭ টায় মেরিনা অপর আসামি নেশা খাতুনকে ডেকে দুইজনে মৃতদেহ বাড়ির ছাদের স্টোর-রুমে তালাবদ্ধ করে রাখে।

কাশিয়াডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মৃত্যুর ১২ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //