আশ্রয়ের খোঁজে হাওরাঞ্চলের লাখ লাখ মানুষ

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি চরম অবনতি হওয়ায় নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছুটে চলছে হাওরাঞ্চলের লাখ লাখ  মানুষ। গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে বসত ঘরে কোমর পানি থাকায় কোনো রকমে রাত কাঠিয়ে আবার অনেকেই রাতেই নিরাপত্তার খোঁজে উঁচু বসত ঘরে, হোটেল, কমিউনিটি সেন্টার, আশ্রয় কেন্দ্র গুলোতে আশ্রয় নিয়েছে বন্যা কবলিত কয়েক লাখ মানুষ।

শুকনো খাবার কলা, বিস্কুট, লোফ, কেক খেয়ে অবস্থান করছেন। জেলার সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে পাহাড়ি ঢলের পানি নিন্মাঞ্চলের দিকে নামছে। সেই সাথে বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে।

রবিবার (১৯ ‍জুন) সকাল থেকে পানি কমতে শুরু করেছে তবে দুর্ভোগ কমেনি।

জেলা শহরে রিক্সা চালক ইকবাল মিয়া জানান, নিচু এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থাকি সেই বাড়ি বন্যার পানিতে ডুবে গেছে। বউ ছেলে মেয়ে নিয়ে এখন সালেহা মঞ্জিল দু’তলা বাড়ির ছাদে উঠেছি। খেয়ে না খেয়ে কোনোরকমে কষ্ট করে সময় পার করছি। সড়কে কোমর পানি রয়েছে, রিক্সা নিয়ে চলাতো দূরের কথা জীবন বাঁচানোই দায় হয়ে পড়েছে।

জেলার পৌর শহরের জামতলা এলাকার বাবুল মিয়া জানান, চোখের পলকেই বসত ঘরে পানি প্রবেশ করে। পরে জিনিসপত্র কোনোরকমে রেখে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে উপরে তিন তলায় পরিবার পরিজন নিয়ে উঠেছে। এই এলাকা শুধু নয় ষোলগর, আরপিন নগর, নবীনগর, হাসননগর, হাজিপাড়াসহ জেলা শহরের প্রতিটি এলাকায় একেই অবস্থা।

এমন কোনো বাসা নেই যেখানে বন্যার পানি কোমর পর্যন্ত হয়নি। অনেকে এলাকা ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে চলে গেছে।

ষোলগর পবন কমিউনিটি সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছে আলা উদ্দিন। তিনি জানান, নবী নগর এলাকায় প্রতিটি বাড়ি পানিতে তলিয়ে গেছে। বাড়ি ঘরে থাকার কোনো উপায় নাই। যে বন্যা হয়েছে তা সকল রেকর্ডকে পিছনে ফেলে দিয়েছে। খুবই দূরবস্থার মধ্যে আছি।

হাওর বেষ্টিত তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী আহমদ মুরাদ জানান, বন্যার চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছে হাওরাঞ্চলে লাখ লাখ মানুষ। আমার ইউনিয়নটি হাওর বেষ্টিত হওয়ার বন্যার পানি প্রতিটি বাড়িতে প্রবেশ করছে। অনেক মাটির বাড়ি ঘর ভেঙে হাওরেই মিশেছে।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রায়হান কবির জানান, ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলোতে প্রয়োজনীয় সহায়তা বিতরণ করা হচ্ছে। বন্যার সার্বিক পরিস্থিতি কঠোর নজরদারি মধ্যে রাখা হয়েছে। কন্টোলরুম ও আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। অনেকেই আশ্রয় নিয়েছে।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //