চাকরির জামানতের টাকা নিয়ে উধাও ‘জিসি ফাউন্ডেশন’

ঝিনাইদহে চাকরি দেওয়ার নাম করে শতাধিক বেকারের কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা জামানত নিয়ে উধাও ‘জিসি ফাউন্ডেশন’ নামের একটি বেসরকারি সংস্থা। অফিস ফেলে পালিয়েছে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হুমায়ূন করিব। লাপাত্তা সংস্থাটির অন্যান্য কর্মকর্তারাও। এদিকে জামানতের টাকা ও দুই মাসের বেতনের জন্য অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

জানা যায়, গত ২৪ মে সদর উপজেলার পোড়াহাটি গ্রামে একটি ভাড়া বাসায় জিসি ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়ে উদ্বোধন করা হয়। এরপর থেকে শুরু হয় বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মী নিয়োগ। এরিয়া ম্যানেজার, ম্যানেজার, হিসাবরক্ষক, মাঠকর্মীসহ বিভিন্ন পদে নিয়োগ দেওয়া হয় শতাধিক বেকার যুবক-যুবতীকে।

এসময় প্রত্যেকের কাছ থেকে জামানত বাবদ নেওয়া হয় ৮ থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত। নিয়োগকৃতদের দেওয়া হয় প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড। পাশাপাশি পদ অনুযায়ী ১০ থেকে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত মাসিক বেতনের আশ্বাস দেওয়া হয়।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) সকালে জিসি ফাউন্ডেশনের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুই মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভুক্তভোগীরা সকালে সদর উপজেলার পোড়াহাটি গ্রামের ভাড়া বাসায় সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে এসে দেখেন অফিস ফাঁকা।

পালিয়েছেন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হুমায়ূন কবির, পরিদর্শক আনিসুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা। জামানত আর বেতন-বোনাসের জন্য সকাল থেকে বিকেল অব্দি বসে থাকলেও খোঁজ মেলেনি প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মকর্তার।

ভুক্তভোগী সাবরিনা আক্তার শোভা জানান, জিসি ফাউন্ডেশন হিসাব রক্ষক পদে চাকরি নিতে ৮ হাজার টাকা জামানত দিতে হয়েছে তাকে। কিন্তু প্রায় ৩ মাস চাকরি করলেও তিনি কোনো বেতন পাননি। ঈদের আগে একবারে পুরো বেতন বোনাস দেওয়ার কথা থাকলেও, তা না দিয়ে পালিয়েছে প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হুমায়ুন কবির।

রুবেল হোসেন নামের আরেক যুবক জানান, চাকরি করতে হলে জামানত দেওয়া লাগবে, তাই ৭ হাজার টাকা দিয়েছি। এক মাসের বেতনও পাই নাই। আমাদের সাথে প্রতারণা করেছে। আমরা প্রশাসনের কাছে জিসি ফাউন্ডেশনের এই প্রতারক চক্রকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল সামি বলেন, জিসি ফাউন্ডেশন নামে কোনো এনজিও’র অনুমোদন দেওয়া হয়নি। যদি কেউ প্রতারণার স্বীকার হয়ে থাকেন, তারা আইনের আশ্রয় নিলে আমরা সহযোগীতা করব।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //