সীমান্তে গুলি ছোড়া হলে বরদাশত করব না: মিয়ানমারের প্রতি হুইপ

মিয়ানমারকে হুশিয়ারি দিয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ মাহমুদ আল স্বপন বলেছেন, আমাদের বন্ধুপ্রতিম প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারকে বলেছি, আমরা তাদের সাথে কোনো বিরোধে যেতে চাই না। তাদের বিষয়ে নাক গলাতে চাই না। আমরা তাদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক চাই। কিন্তু মগের মুল্লুক নিজের আঞ্চলিক সমস্যার কারণে কিছু কিছু সমস্যা সৃষ্টি করছে। নিজেদের সমস্যা নিজেরা সমাধান করুণ। তাদের সমস্যার কারণে সীমান্তে গুলি ছোড়া হলে, আমরা বরদাশত করব না। আমরা শান্তি চাই।

আজ বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল আওয়ামী লীগ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। 

১৮ বছর পর এই উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হলো। সম্মেলনে শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন নেতাদের নাম ঘোষণা করা হয়। এতে সভাপতি হয়েছেন অ্যাডভোকেট নাজমুল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক নারী সংসদ সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম (শিউলী আজাদ)। এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রফিক উদ্দিন ঠাকুরের ছেলে সাইফুল ইসলাম ঠাকুর রাব্বীকে। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী তাদের নাম ঘোষণা করেন। 

বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে অন্নদা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।  সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি। সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক নাজমুল হোসেনের সভাপতিত্বে এতে  বিশেষ অতিথি ছিলেন ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উম্মে ফাতেমা বেগম শিউলী আজাদ এম.পি। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকার।

আবু সাঈদ মাহমুদ আল স্বপন বলেন, আমাদেরকে গ্রুপিং মুক্ত রাজনীতি করতে হবে। বিষয়টি আপনারা বিবেচনা করবেন। সরাইলে আমি কিংবা মোকতাদির চৌধুরী ভোটের রাজনীতি করতে আসবেন না। প্রধানমন্ত্রী যাকে নৌকার মনোনয়ন দিবেন, তাকে জয়ী করার জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। শেখ হাসিনার রাজনীতি কোনোভাবেই থেমে থাকতে পারে না। যারা সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি প্রয়ার ইকবাল আজাদ হত্যাকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন এবং যারা এই মামলার অভিযোগপত্র ভুক্ত আসামি হয়েছেন, তাদের কাউকেই আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়ে স্থান দেওয়ার সুযোগ আমাদের নেই। যারা ইকবাল আজাদ হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত নয় কিন্তু বিভিন্ন কারণে, রাজনৈতিক বিভক্তির কারণে হয়তো ভিকটিম হয়েছেন তাদেরকেও রাজনীতি থেকে বাদ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। যারা হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ত ও অভিযোগপত্র ভুক্ত আসামি তাদের ক্ষেত্রে আমরা কঠোরতম অবস্থান গ্রহণ করেছি। এই অবস্থান আমাদের অব্যাহত থাকবে। এই অবস্থান থেকে আমরা নড়ব না। 

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //