জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

ছাত্রীদের তোপের মুখে পূজার ছুটিতে খোলা থাকছে হল

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল পূজার ছুটিতে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন। এটা নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হলে প্রশাসনের সাথে আলোচনার প্রেক্ষিতে পুনরায় হল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. শামীমা বেগম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে, বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে পূজার ছুটিতে হল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় হল কর্তৃপক্ষ। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এসময় শিক্ষার্থীরা টিউশনিসহ বিভিন্ন কারণে বাড়ি যেতে ইচ্ছুক না হওয়ায় হলে থাকার আবেদন জানান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের মাঝে সমালোচনার ঝড় ওঠে। পূজার ছুটিতে আবাসিক ছাত্রী হলের শিক্ষার্থীরা কোথায় অবস্থান করবে সেটা নিয়েও নানা প্রশ্ন ওঠে।

এছাড়া হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ভাড়া না থাকা শিক্ষার্থীরা বাড়িতে কিভাবে যাবে এটা নিয়েও ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করে কয়েকজন শিক্ষার্থী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সাথে শিক্ষকরাও বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানান।

কলা অনুষদের সাবেক ডীন অধ্যাপক চঞ্চল বোস ফেসবুকে মন্তব্যের মাধ্যমে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের হল ছুটিতে বন্ধ থাকে বলে কখনো শুনিনি। ঢাবিতে ৬ বছরের বেশি মুহসীন হলে ছিলাম, এক মুহূর্তের জন্যও কোনো হল বন্ধ থাকার কথা কেউ কল্পনাও করতে পারেনি। বরং ছুটিতে হলে থেকেই আমরা বেশি পড়াশুনো করেছি, লাইব্রেরি ওয়ার্ক করেছি। অনেক ছেলেমেয়ে টিউশনি, চাকরি, পত্রিকা অফিসে কাজ করতো। এরকম অদ্ভুত কথা তো শুনিনি।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষার্থীরা জানান, পূজার ছুটিতে টিউশনি থাকায়, এবার বাসায় যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা ছিলো না। হঠাৎ হল বন্ধের নোটিশ দেখে বেশ বিড়ম্বনার মাঝে পড়ে গিয়েছিলাম। দেশের অন্য কোনো হল এভাবে ছুটিতে বন্ধ রাখে বলে জানা নেই। এছাড়া বন্ধের পরে আমাদের পরীক্ষাও ছিল। তবে হল কর্তৃপক্ষ তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের কারণে খুশি হয়েছি।

শিক্ষার্থীরা আরো জানান, পূজার ছুটি যদি বৈষম্য সৃষ্টি করে তাহলে আমরা ঈদেও হল বন্ধ হোক সেটা চাই না। পূজার সময় হল বন্ধ রাখার ঘোষণা কি কারণে দেওয়া হলো তা জানা নেই। কোনো বিবেকবান মানুষ এমন সিদ্ধান্ত জানাতে পারে না। অনেকের টিউশনি আছে, ছুটির পরই পরীক্ষা। তারা বাড়ি যেতে চায় না। হল বন্ধ হয়ে গেলে তারা থাকবে কোথায়?

প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. শামীমা বেগম জানান, পূজার ছুটির পর বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর কয়েকটি বিভাগে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা আছে। তাদের কথা বিবেচনা করে প্রশাসনের সাথে আলোচনা করে হল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //