নৌকায় ভোট না দিলে দেশ থেকে বিতাড়িত করার হুমকি

নৌকায় ভোট না দিলে সনাতন ধর্মাবলম্বী এক পরিবারকে দেশ থেকে বিতাড়িত করার হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও হাতিবান্ধা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ব্রজেন্দ্রনাথ (৪৪) নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি আওয়ামী লীগ নেতা শ্যামলসহ ১২ নেতাকর্মীর নামে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। ব্রজেন্দ্রনাথ ওই উপজেলার পূর্ব সিন্দুর্না গ্রামের দেবেশ্বর বর্মণের ছেলে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হাতীবান্ধা উপজেলার সিন্দুর্না ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আগামী ২৯ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনজন প্রার্থী। আওয়ামী লীগের নৌকা প্রার্থী নুরল আমীন ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে শুরু থেকে প্রচারণায় বাধা ও হামলা ভাঙচুরের অভিযোগ করে আসছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম আরিফ। 

গত শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ৮ থেকে ৯টি মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে নৌকা প্রতীকের প্রচারণায় পূর্ব সিন্দুর্না গ্রামে যান আওয়ামী লীগ নেতা আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল। এসময় পূর্ব সিন্দুর্না গ্রামের লোকজনকে ২৯ ডিসেম্বর নৌকায় ভোট দিতে বলেন। নৌকায় ভোট দিতে রাজি না হওয়ায় ওই গ্রামের সনাতন ধর্মাবলম্বী ব্রজেন্দ্রনাথ ও তার স্ত্রীর ওপর ক্ষিপ্ত হন তিনি। এসময় শ্যামলের লোকজন তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে দেশিয় অস্ত্র উঁচিয়ে হুমকি দিয়ে বলেন, নৌকায় ভোট না দিলে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেশ থেকে বিতাড়িত করা হবে। এ দেশে থাকলে নৌকায় ভোট দিতে হবে।

এ ঘটনায় নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তাসহ ন্যায় বিচার চেয়ে আজ রবিবার (২৫ ডিসেম্বর) হাতীবান্ধা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী ব্রজেন্দ্রনাথ।

স্থানীয়রা জানান, ইতোপূর্বে এ গ্রামে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা একাধিকবার ঘটেছে। আহত হয়েছেন অনেকেই। পর পর দুই দিনের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ২২জন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘ্নিত করতে পুরো এলাকায় আতংক ও ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হচ্ছে বলেও তারা অভিযোগ করেন।

তবে অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল জানান, আওয়ামী লীগের ছায়াতলে বাংলাদেশের হিন্দু-খ্রিস্টান আশ্রয় নিয়ে আছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম অভিযোগ দিয়েছেন সেটি আদৌ সত্য না। উপ-নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে তারা থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলমের ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, উপ-নির্বাচনকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। থানায় কোনো অভিযোগ দিয়েছে কিনা সেটার বিষয় আমার জানা নেই। ভয়ভীতি বা অপ্রীতিকর ঘটনার অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //