বিজিপি সদস্যদের ফেরত নিতে

বাংলাদেশের জলসীমায় মিয়ানমারের জাহাজ

বাংলাদেশের জলসীমায় অবস্থান করছে মিয়ানমারের জাহাজ। এই জাহাজে করে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া ৩৩০ মিয়ানমার বিজিপি সদস্যসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের ফেরত পাঠানো হবে।

তারা সেদেশে যুদ্ধ ক্ষেত্র থেকে প্রাণ বাঁচাতে গত কয়েকদিনে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয়। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী বিজিবি তাদের নিরস্ত্র করে হেফজতে নিয়েছিল।

আশ্রয়গ্রহণকারীদের অনেকেই গুলিবিদ্ধ। তদ্মধ্যে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চারজন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে চারজন এবং উখিয়ার কুতুপালং এমএসএফ হাসপাতালে ১১ জন ভর্তি আছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। 

গুরুত্বর আহতদের আদৌ ফেরত নেওয়া হবে কিনা সেটা এই পর্যন্ত নিশ্চিত করেনি কোন বাংলাদেশি সংস্থা। 

এদিকে টেকনাফ উপজেলায় নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আদনান চৌধুরী জানিয়েছেন, ফেরত প্রক্রিয়া ঠিক কখন শুরু হবে এ বিষয়ে তিনি নিশ্চিত নয়।

তবে মিয়ানমারের জাহাজটি বাংলাদেশের জলসীমায় অবস্থান করছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, পুরো প্রক্রিয়াটির সাথে যুক্ত রয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নৌবাহিনী, বিজিবি ও কোস্ট গার্ড।

কোস্ট গার্ডের টেকনাফ স্টেশন কমান্ডার লে. কমান্ডার লুৎফুল লাহিল মাজিদ জানান, বাংলাদেশ নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ড সমুদ্রপথে মিয়ানমার জাহাজটিকে স্বাগত জানিয়েছে। মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা দেশটির বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের ফিরিয়ে নিতে এই জাহাজটি পাঠিয়েছে দেশটির জান্তা সরকার।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ শাহীন ইমরান জানান, রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দিনের যেকোনো আশ্রয়গ্রহণকারীদের ফেরত প্রক্রিয়া শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে।

বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের তত্ত্বাবধানে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা দেশটির বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যসহ মোট ৩৩০ নাগরিককে টেকনাফের দুটি স্কুলে রাখা হয়েছে।

মিয়ানমারের জাহাজটি বড় হওয়ার কারণে একদম উপকূলের কাছে আসতে পারবে না। তাই ছোট ছোট নৌকা বা ট্রলারে করে তাদের বড় জাহাজে তুলে দেওয়া হবে।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মিজানুর রহমান শনিবার জানান, মিয়ানমারে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর হাত থেকে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশ পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছেন দেশটির ৩৩০ জন সীমান্তরক্ষী। দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে আলোচনার পর তাদের ফিরিয়ে নিতে সম্মত হয়েছে মিয়ানমার। ইতোমধ্যে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি। 

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ইনানীর নৌবাহিনীর জেটিঘাট থেকে মিয়ানমারের জাহাজে করে আজ দিনের যেকোনো সময় আশ্রয়গ্রহণকারীদের ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হতে পারে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //