সাংবাদিক হত্যাচেষ্টা: ১ জনের কারাদণ্ড ও জরিমানা

ঝিনাইদহে সাংবাদিক আব্দুর রহমান মিল্টনকে হত্যাচেষ্টা ও সাংবাদিক অফিসে হামলা-ভাংচুর মামলার রায়ে আসামি শামিমুল ইসলাম ওরফে শামিমকে ২ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০০ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মামলার অপর আসামি জহুরুল ইসলাম হিরোকে খালাস দেয়া হয়েছে। 

আজ বুধবার (১৫ মে) দুপুরে ঝিনাইদহ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারক সঞ্জয় পাল এই রায় ঘোষণা করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১৫ ডিসেম্বর রাতে ঝিনাইদহ জেলা শহরের এইচএসএস সড়কে যমুনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি আহমেদ নাসিম আনসারীর স্থানীয় অনলাইন কার্যালয়ে দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে সাংবাদিক আব্দুর রহমান মিল্টনকে হত্যার চেষ্টা করে। তার সাথে আরো এক সাংবাদিক গুরুত্বর আহত হন, হামলাকারীরা অফিস ভাংচুর ও লুটপাট করে। গুরুত্বর আহত অবস্থায় রাতেই ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাদের। এ ঘটনায় শামিমুল ইসলাম শামিম ও জহুরুল ইসলাম হিরোর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১০ থেকে ১৫ জনের নামে ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলা করেন সাংবাদিক আব্দুর রহমান মিল্টন।

সেই মামলায় ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে ঝিনাইদহ সদর থানার তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পুলিশ শামিমুল ইসলাম শামিমকে গ্রেপ্তার করে। পরবর্তীতে জামিনে মুক্ত হন। মামলাটির দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়া শেষে আদালত এই রায় দেন। 

সাংবাদিক আব্দুর রহমান মিল্টন যখন হামলার শিকার হন তখন ডিবিসি নিউজের ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি ছিলেন, বর্তমানে প্রতিদিনের বাংলাদেশ ও এখন টিভির রিপোর্টার হিসাবে ঝিনাইদহে কর্মরত আছেন।

আদালতের রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় আব্দুর রহমান মিল্টন জানান, মামলার ২নম্বর আসামি জহুরুল ইসলাম হিরোও সরাসরি হামলায় যুক্ত ছিলেন, বিজ্ঞ আদালতের রায়ে ২নম্বর আসামিকে খালাস দেয়া হয়েছে। 

তিনি ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করেন জানিয়ে বলেন, বিজ্ঞ আদালতের রায়ের কপি হাতে পাওয়ার পরে আইনজীবীদের সাথে আলাপ-আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবো। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবি ছিলেন এপিপি অ্যাডভোকেট মো. শাহিন।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //