দুম্বার খামার এখন চুয়াডাঙ্গায়

চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের অদূরে দামুড়হুদা উপজেলার কোষাঘাটা গ্রামে ২০১৮ সাল থেকে গো গ্রীন সেন্টারে পরিকল্পিত উপায়ে দুম্বা প্রজনন খামারে পালিত হচ্ছে এবং এখান থেকে চাহিদা মত বিক্রি করা হচ্ছে দুম্বা। জেলা প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টদের পক্ষ থেকে এ জেলায় দুম্বা পালন ও সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা ওয়েভ ফাউন্ডেশনের প্রাণীসম্পদ বিভাগ থেকে জানা যায়, দুম্বা প্রজনন খামারে বর্তমানে দুই ধরনের জাতের দুম্বা রয়েছে। এগুলো হলো- মধ্যপ্রাচ্যের সাদা রঙের ‘আয়োসী’ ও আফ্রিকার সাদা ও খয়েরী রঙের ‘রেড মশাই’ জাত। দুম্বা মূলত ছাগল-ভেড়া পালনের মত পালন করা যায়। এরা প্রতিদিন ভুষি, খৈল, ডালের খোঁসা ও চালে কুঁড়ো এবং নেপিয়ার ঘাস খায়। ৩ থেকে ৪ মাস বয়সের দুম্বার বাচ্চার ওজন হয় ১২ থেকে ১৫ কেজি। দেড় বছর বয়সের ছাগী দুম্বার ওজন হয় ৪৫ কেজি এবং আড়াই বছরের পাঁঠা দুম্বার ওজন হয় ৭০ থেকে ৮০ কেজি। দুম্বা ১০ থেকে ১২ মাস বয়সে গর্ভধারণের উপযুক্ত হয়। এক সাথে ১টি অথবা ২টি বাচ্চা প্রসব করে থাকে। ৬ মাস পর পর প্রত্যেকটি দুম্বার পিপিআর ও গোট পক্স টিকা এবং ৩ মাস পর পর কৃমির ঔষধ খাওয়ানো হয়। দুম্বা খামার থেকে ক্রেতাদের একটি তালিকা করা হয়। ওই তালিকা অনুযায়ী তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে দুম্বা বিক্রি করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা ওয়েভ ফাউন্ডেশনের লাইভস্টক টেকনিক্যাল কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান হাসান বলেন, দুম্বাগুলো খুবই নিরীহ। কোন চিৎকার চেঁচামেচি করে না। বছরে দুই বার বাচ্চা দেয়। বাচ্চাগুলো খুবই সুন্দর হয়। আমরা চেষ্টা করছি উপকারভোগীদের মধ্যে দুম্বা পালন ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য।

ওয়েভ ফাউন্ডেশনের জ্যেষ্ঠ সমন্বয়কারী কামরুজ্জামান যুদ্ধ জানান, ২০১৮ সাল থেকে দুটি জাতের দুম্বা আমরা পুষছি। এই প্রজনন খামার থেকে আমরা দেশের বিভিন্ন জায়গায় দুম্বার বাচ্চা সরবরাহ করছি। দুম্বা পালনের জন্য পারিবারিক পর্যায়ে ছোট ছোট খামার তৈরির করার জন্য আমরা আমাদের সদস্যদের উৎসাহিত করছি।

দুম্বা ক্রেতা আব্দুল লতিফ বলেন, ৪-৫ বছর ওয়েভ ফাউন্ডেশন থেকে দুম্বা কিনছি। এখানকার দুম্বাগুলো খুবই মানসম্মত এবং ভালো। আমি ঢাকাতে নিয়ে গিয়ে দুম্বা বিক্রি করি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রাণিসম্পদের উন্নয়ন খাতে দুম্বা পালন একটি সম্ভাবনাময় খাত। চুয়াডাঙ্গার ওয়েভ ফাউন্ডেশন আমাদের মাধ্যমে দুম্বা প্রজনন ও সম্প্রসারণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা বিভিন্নভাবে তাদের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।

দুম্বা পালন এ জেলায় একটি সম্ভাবনাময় খাত। চুয়াডাঙ্গা জেলার অনেক খামারী ভেড়ার একটি জাতকে দুম্বা বলে বিক্রি করে ক্রেতাদের ঠকাচ্ছে। দুম্বা প্রজনন খামার থেকে প্রকৃত দুম্বা কিনে ক্রেতারা লাভবান হচ্ছে। মাংস সমৃদ্ধ দুম্বা পালন ও সম্প্রসারণ করতে পারলে এ জেলার খামারীরা আর্থিকভাবে লাভবান হবে এবং মাংসের চাহিদাও মেটাতে পারবে বলে মনে করে সংশ্লিষ্টরা।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //