সিলেট ও সুনামগঞ্জে ফের বন্যা পরিস্থিতি

ভারতের মেঘালয় অঞ্চলে অতিবৃষ্টির ফলে সিলেট ও সুনামগঞ্জে আবারও দেখা দিয়েছে আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি। গতকাল রবিবার (৩০ জুন) রাত থেকে দ্রুত বাড়তে থাকা ঢলের পানিতে সুরমা, কুশিয়ারা, সারি ও যাদুকাটা নদী আজ সোমবার (১ জুলাই) বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় মেঘালয় রাজ্যের মৌসিনরামে ৪৪৭ মিলিমিটার ও চেরাপুঞ্জিতে ৩১৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

মৌসিনরাম বাংলাদেশের সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার উত্তরে এবং চেরাপুঞ্জি সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার উজানে অবস্থিত হওয়ায় এসব এলাকার অতিবৃষ্টির পানি দ্রুতই সুনামগঞ্জ ও সিলেটে প্রবেশ করে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি করে।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল রোববার সন্ধ্যায় বিপৎসীমার ১৯ সেন্টিমিটার নিচে দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল সুরমা নদীর পানি। আজ ভোরে এ নদীর পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করে দুপুর ৩টায় সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে ৯৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে দুপুর ১২টার পর সিলেটের একটি পয়েন্টে কুশিয়ারা ও একটি পয়েন্টে সারি নদী বিপৎসীমা অতিক্রম করেছে।

বিকেল ৩টায় কুশিয়ারা নদী জকিগঞ্জের অমলসীদে বিপৎসীমার ৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এই নদীর পানি ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে বিপৎসীমার উপরে ছিল যা আরও বেড়ে বিপৎসীমার ৮৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

একই সময়ে সারি নদী জৈন্তাপুর উপজেলার সারিঘাটে বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

সুরমা নদী সুনামগঞ্জ জেলায় দুপুর ১২টার সময় ছাতক পয়েন্টে বিপৎসীমার ৩৬ সেন্টিমিটার এবং সুনামগঞ্জ শহর পয়েন্টে বিপৎসীমার ১১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে, যাদুকাটা নদী সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের শক্তিয়ারখলা পয়েন্টে বিপৎসীমার ৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //