পুঠিয়ায় চিরকুট লিখে মিটার চুরি, ফেরত পেতে দিতে হচ্ছে টাকা

রাজশাহীর পুঠিয়ায় চুরি যাওয়া বিদ্যুতের মিটার ফেরত দিতে চিরকুট লিখে রেখে যায় চোরচক্র। চিরকুটে লেখা থাকে ‘চুরি যাওয়া মিটার ফেরত পেতে ফোন করুন’। চিরকুটে থাকা নম্বরে ফোন করলে বিকাশ নম্বরে টাকা চাওয়া হয়। টাকা পাঠানোর পর মিটার কোথায় পাওয়া যাবে, তা বলে দেওয়া হচ্ছে।

গতকাল বুধবার (১০ জুলাই) রাতে পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ও বেলপুকুর ইউনিয়ন এলাকা থেকে ১১টি মিটার চুরি হয়। পরবর্তী সময়ে মিটারের স্থানে গিয়ে একটি ছোট্ট চিরকুট পাওয়া যায়। সেখানে একটি ফোন নাম্বার দেওয়া এবং বলা হয় মিটারের জন্যই যোগাযোগ করুন। পরে মিটারের জন্য যোগাযোগ করা হলে  বিকাশের মাধ্যমে ছয় হাজার টাকা দাবি করে। সেই সাথে ৬ হাজার টাকা পরিশোধ করলে মিটার পাওয়া যাবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। বানেশ্বর ও বেলপুকুর থেকে এভাবে প্রায় ১১টি মিটার এক রাতেই চুরির ঘটনা ঘটে।

মিটার মালিক আয়নাল হোসেন বলেন, আমার মিলে গিয়ে দেখি মিটার নেই, পরে সেখানে রাখা আছে একটি  চিরকুট। সেই চিরকুটে একটি মোবাইল নাম্বার লেখা ছিল। পরে আমি সেই নাম্বারে যোগাযোগ করলে একজন আমাকে বলেন আপনার মিটারটি ফেরত পেতে হলে এই নাম্বারটিতে ৬ হাজার টাকা বিকাশ করুন তাহলে আপনার মিটারটি ফেরত পেয়ে যাবেন। আমি বাধ্য হয়ে সেই নাম্বারটিতে ৬ হাজার টাকা বিকাশ করি। পরবর্তী সময়ে আমার মিলের পাশে জঙ্গলের মধ্যে থেকে মিটারটি খুঁজতে বলে। আমি সেখানে খুঁজতে গিয়ে মিটারটি পেয়ে যাই। পরবর্তী সময়ে ওই নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে নাম্বারটি বন্ধ দেখায়। আমি এ বিষয়ে আজ বিকেলে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করব বলে জানান এই মিটার মালিক।

আলাউদ্দিন হোসেন বলেন, শুনেছি অনেক জনের মিটার চুরি হয়েছে। টাকার বিনিময়ে মিটার ফেরত দেওয়ার জন্য মোবাইল নাম্বারও রেখে গেছে। আমার বেলাও ঠিক এমনটাই ঘটেছে। যখন জানতে পারি টাকা পরিশোধ করার পরে আশেপাশে মিটার পাওয়া যাচ্ছে। তখন আমি কিছু লোকজন নিয়ে আমার মিলের আশেপাশে খোঁজা-খুঁজি করার পরে আমার মিটারটি খুঁজে পাই। আমার মত এভাবে অনেক জনই মিটার তাদের ফেরত পেয়েছে। কিন্তু প্রথম অবস্থায় যারা ফোন করেছে তাদের থেকে মিটার প্রতি ৬ হাজার করে টাকা নিয়েছে চোরচক্র।

এ ব্যাপারে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর অধীনে পুঠিয়া জোনাল অফিসের এ জি এম বলেন, এ বিষয়ে আমরা শুনেছি, আমরা গ্রাহকদের পরামর্শ দিয়েছি পুলিশ/র‍্যাবের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করার জন্য।

এছাড়াও তিনি বলেন, বড় একটি চোরচক্র এই কাজগুলো করছে, সবাইকে একটু সজাগ থাকার নির্দেশও দেন তিনি।

এ বিষয়ে পুঠিয়া থানার (ওসি) সাইদুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আমার কাছে এখনো কেউ কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি। যদি কেউ অভিযোগ নিয়ে আসে তা তদন্ত করে দেখা হবে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //