ক্ষতি কাটাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ

ইউজিসির লোগো

ইউজিসির লোগো

করেনাাভাইরাস মহামারিতে উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো এবং ছুটি বাতিলের পরামর্শ দিয়ে রিকভারি গাইডলাইন প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। পুরো সিলেবাসে পাঠদান সম্পন্ন করাসহ ছয়টি সুপারিশ করা হয়েছে গাইডলাইনে।

 ইউজিসি সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামানের স্বাক্ষরিত গাইডলাইনটি আজ মঙ্গলবার (২২ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারদের পাঠিয়েছে ইউজিসি। তবে এই পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদন নিতে হবে।

গত ৩১ মে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ইউজিসি ও উপাচার্যদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সক্ষমতা ও বাস্তবতা অনুযায়ী একটি রিকভারি গাইডলাইন তৈরির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল সভায় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চেীধুরী, ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ যুক্ত ছিলেন।

ইউজিসি রিকভারি গাইডলাইন

১. বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত/বিদ্যমান অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডারের সময়কাল উল্লেখযোগ্য ও গ্রহণযোগ্যভাবে কমিয়ে আনতে হবে।

২. সেমিস্টার/টার্ম বা বার্ষিক পদ্ধতির ক্ষেত্রে ব্যবহারিক বিষয়সহ সব বিষয়ের ক্লাস/ক্লাস টেস্ট/অ্যাসাইনমেন্ট/কুইজ/সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা প্রচলিত সময়ের চেয়ে কম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন ছুটি (Summer Vacation, Winter Vacation, Festival Vacation) কমানো যেতে পারে বা ছুটি পরিহার করা যেতে পারে।

৩. প্রতিটি ক্লাসের (তত্ত্বীয় ও ব্যবহারিক) সময় বর্তমানের মতোই বলবৎ থাকবে অর্থাৎ লেকচারের সময় কমানো যাবে না। তবে লেকচারের সংখ্যা কমানোর প্রয়োজন হলেও পুরো সিলেবাসের পাঠদান সম্পন্ন করতে হবে।

৪. একাডেমিক ক্যালেন্ডারের সময় কমানোর স্বার্থে ক্লাস টেস্ট/কুইজ/মিডটার্ম পরীক্ষা/অ্যাসাইনমেন্ট/টার্ম পেপারের মতো বিষয়গুলো নিয়ে নতুনভাবে চিন্তা-ভাবনা করা যেতে পারে।

৫. চূড়ান্ত পরীক্ষার ক্ষেত্রে পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক ছুটি (Preparatory Leave), দুটি বিষয়ের পরীক্ষার মাঝের গ্যাপ ও বর্ষ/সেমিস্টারের/টার্মের মাঝের গ্যাপ (Inter Semester/Term/Year Break) কমানো যেতে পারে।

৬. সর্বোপরি রিকভারি পরিকল্পনা গ্রহণ করে তা একাডেমিক কাউন্সিল কর্তৃক অনুমোদিত হওয়ার পর শিক্ষাবর্ষের শুরুতেই অনুমোদিত একাডেমিক ক্যালেন্ডার শিক্ষার্থীদের অবহিত করে তা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে এবং প্রণীত একাডেমিক ক্যালেন্ডার বাস্তবায়নে সর্বাত্মক উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

করোনার কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। কয়েক দফা চেষ্টা করেও ক্লাস শুরু করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে অনলাইনে পাঠদান চালু থাকলেও ইন্টারনেট ও ডিভাইস সমস্যার কারণে অনেক শিক্ষার্থীই এর বাইরে থেকে গেছেন। অনলাইনে পরীক্ষা নেয়ার অনুমোদন থাকলেও অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ই সে পথে যায়নি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh