এমপিওভুক্তির নতুন নীতিমালায় কপাল পুড়ছে শিক্ষকদের

২০২১ সালে সরকার ঘোষিত সর্বশেষ এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী ডিগ্রি কলেজ পর্যায়ে এমপিওভুক্তির শর্ত হিসেবে দুটি বিভাগ চালু থাকতে হবে। এতে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে একটি বিভাগ চালু আছে তারা দীর্ঘদিন এমপিওর আশায় থেকেও নীতিমালার বেড়াজালে পড়ে আবেদনই করতে পারছেন না। 

এমন পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরে বিনা বেতনে কর্মরত এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা হতাশার সাগরে ডুবে গেছেন।

এমপিওভুক্তির আশায় ১৫ বছর ধরে বিনা বেতনে পাঠদান করে যাচ্ছেন ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুর হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রি কলেজের ১০ শিক্ষক। এর জন্য স্বীকার করে নিয়েছেন মানবেতর জীবনযাপন। খেয়ে-না খেয়ে পড়ে আছেন একটি স্বপ্ন নিয়ে; একদিন বেতন হবে, তাদের পরিশ্রম সফল হবে, পরিবার-পরিজন নিয়ে দু'মুঠো খেয়ে বাঁচতে পারবেন। কিন্তু নতুন নীতিমালায় তাদের সেই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। শর্তের বেড়াজালে এমপিওভুক্তির জন্য তারা নতুন করে আবেদনই করতে পারছেন না।

হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রি কলেজ সূত্রে জানা গেছে, কলেজটিতে ২০০৪ সালে ডিগ্রি পর্যায়ে ছয়জন এবং ২০১০ সালে আরও চারজন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়। ১৫ বছর ধরে তারা বিনা বেতনে পাঠদান করছেন।

প্রতিষ্ঠানটির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষকা রুনা লাইলা জানান, সর্বশেষ নীতিমালা অনুযায়ী এমপিওভুক্তির জন্য কলেজের স্নাতক পর্যায়ে মানবিক, বিজ্ঞান অথবা ব্যবসায়শিক্ষা বিভাগের ন্যূনতম দুটি বিভাগ চালু থাকতে হবে। অথচ ২০১৯ সালের নীতিমালায় এই শর্ত ছিল না। নতুন নীতিমালা শিথিল না করলে তাদের এমপিওভুক্তি অনিশ্চিত।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //