বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিন্ন ভর্তি পরীক্ষার চিন্তা

দেশের সব পাবলিক ও প্রাইভেট (বেসরকারি) বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২৩ সাল থেকে অভিন্ন ভর্তি পরীক্ষার কথা ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

এর আওতায় অভিন্ন পরীক্ষার মাধ্যমে পছন্দক্রম অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবে বলে জানিয়েছে ইউজিসি সূত্র।

আজ রবিবার (১৫ মে) ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ এসব কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, পরীক্ষার মাধ্যমে যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হবে। শিক্ষার্থীরা পছন্দ অনুযায়ী চয়েস ফর্ম পূরণ করতে পারবে। অটোমেটিক সিস্টেমে তারা ভর্তির সুযোগ পাবে।

অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ বলেন, মেডিকেল কলেজগুলোতে যেমন একটি ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়, এরপর শিক্ষার্থীরা অপশন অনুযায়ী ধারাবাহিকভাবে পাবলিক বা প্রাইভেট মেডিকেলে চয়েস দিতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রেও পাবলিক ও প্রাইভেটের পরীক্ষা একসঙ্গে হতে পারে। এ ক্ষেত্রে গুচ্ছ পদ্ধতিতে আসা যায় কি না, সে ব্যাপারে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্য বা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বসে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তবে এ পদ্ধতিতে মান নিশ্চিত করতে না পারলে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হারাবে বলে মনে করছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি।

বর্তমানে দেশে ১১২টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। কিছুসংখ্যক শীর্ষস্থানীয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ব্যতীত অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে নিজেদের ইচ্ছেমতো শিক্ষার্থী ভর্তির অভিযোগ দীর্ঘদিনের। এনব অভিযোগ কমাতে বেসরকারি সব বিশ্ববিদ্যালয়েই এবার ভর্তি পরীক্ষা চালুর পরিকল্পনা করছে ইউজিসি।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী বলেন, এক্ষেত্রে এমন ঘটনা ঘটতে পারে যে, কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নাও পেতে পারে। বর্তমানে কেন্দ্রীয়ভাবে বণ্টনের কারণে কোনো কোনো কলেজ কিন্তু শিক্ষার্থী পাচ্ছে না। সেটা কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রেও ঘটতে পারে। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর দায়িত্ব হবে মানসম্মত শিক্ষা দেওয়া।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //