ইউক্রেন যুদ্ধ : জ্বালানি খাতে মুনাফা বেড়েছে রুশ কোম্পানির

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, পশ্চিমা দেশগুলো আগামী কয়েক বছরেও রাশিয়ার কাছ থেকে তেল ও গ্যাস নেওয়া বন্ধ করবে না। এই সময়ের মধ্যে কী হতে পারে সেটা কেউই জানে না, ফলে রুশ কোম্পানিগুলোকে তাদের তেল-কূপ বন্ধ করে দিতে হবে না।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারাও স্বীকার করে নিয়েছেন, ইউক্রেন যুদ্ধের পরে জ্বালানি খাতে রাশিয়ার মুনাফা যুদ্ধের আগের তুলনায় বেড়ে গেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বর্তমানে তার প্রয়োজনীয় গ্যাসের ৪০% রাশিয়ার কাছ থেকে আমদানি করে থাকে। ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর ইউরোপের দেশগুলোর এই জোট তেল ও গ্যাসের জন্য রাশিয়ার ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনার কথা ঘোষণা করেছে।

তারা বলছে, ২০০২ সালের শেষ নাগাদ তেলের ওপর নির্ভরতা ৯০% কমাবে। কিন্তু গ্যাসের ব্যাপারে কতোটুকু হ্রাস করবে এখনো তার কিছু উল্লেখ করেনি।

ইউক্রেন যুদ্ধের পর মস্কোকে শাস্তি দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার জ্বালানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। কিন্তু বিশ্বব্যাপী তেল ও গ্যাসের মূল্য বেড়ে যাওয়ার কারণে এই খাতের রাশিয়ার মুনাফাও বৃদ্ধি পেয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলেন, সার্বিকভাবে সরবরাহের পরিমাণ কমে যাওয়া সত্ত্বেও জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি কারণে সম্প্রতি রুশ কোম্পানিগুলোর মুনাফাও বেড়ে থাকতে পারে।

গত বৃহস্পতিবার (৯ জুন) রুশ সাম্রাজ্যের জার পিটার দ্য গ্রেটের ৩৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তরুণ উদ্যোক্তাদের উদ্দেশে পুতিন বলেন, বিশ্ব বাজারে তেলের পরিমাণ কমছে, কিন্তু দাম বাড়ছে। এর ফলে রুশ কোম্পানির মুনাফা বাড়ছে।

গত বৃহস্পতিবার এই একই ধরনের কথা শোনা যায় যুক্তরাষ্ট্রের জ্বালানি নিরাপত্তা সংক্রান্ত দূত অ্যামোস হোকস্টেইনের মুখ থেকেও। সিনেটে শুনানির সময় জানতে চাওয়া হয়েছিল রাশিয়া কি এখন জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে যুদ্ধের আগের সময়ের চেয়েও বেশি মুনাফা করছে? এর উত্তরে অ্যামোস হোকস্টেইন বলেন, আমি এটা অস্বীকার করতে পারবো না।

অষ্টাদশ শতাব্দীর শাসক পিটার দ্য গ্রেট দীর্ঘ সময় ধরে সুইডেনের সাথে যুদ্ধ করেন। প্রেসিডেন্ট পুতিন তার ইউক্রেন যুদ্ধকে পিটার দ্য গ্রেটের সুইডেন যুদ্ধের সাথে তুলনা করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আপনাদের মনে হতে পারে যে সুইডেনের সাথে যুদ্ধে তিনি কিছু কেড়ে নিতে চাইছেন। কিন্তু তিনি কিছু নিচ্ছিলেন না, তিনি শুধু এটা ফেরত নিচ্ছিলেন।’

ইউক্রেন প্রসঙ্গেই তিনি বলেন, ‘ফিরিয়ে নিয়ে শক্তিশালী করা আমাদের দায়িত্ব।’ -বিবিসি

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //