পূজার পোশাক

মডেল: সাফিনা

মডেল: সাফিনা

শরতে প্রকৃতির সাজের সঙ্গে শারদীয় উৎসবে ভিন্নরূপে সেজে ওঠে সবাই। যেকোনো পূজা-পার্বণে পোশাক ডিজাইনের ক্ষেত্রে ঋতুটিকে মাথায় রেখেই কাজ করেন ফ্যাশন হাউসগুলো। 

শরতের সাথে যেহেতু সনাতন ধর্মের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা এসেছে, সেহেতু উৎসবের পোশাকের পাশাপাশি শরতের সাদা, নীল, কমলা রঙের মেলবন্ধনের পোশাক তো রয়েছেই। 

প্রথমেই মনে মনে সাজপোশাকের একটা ছক কষে নিন। একেক দিন একেক রকম সাজ আর পোশাক বেছে নিন। লুকে বৈচিত্র্য আসবে। শাড়ির আবেদন তো চিরায়ত। তাই বলে শাড়ি ছাড়া পূজা হবে না, তা কিন্তু নয়। দিনের বেলায় এখনো খানিকটা গরম। পোশাক যা-ই হোক, সুতিই ভালো। বিকেলে বা সন্ধ্যাটা তুলে রাখুন জমকালো পোশাকের জন্য। সময়ের ট্রেন্ড তাই জানা থাকা দরকার। 

পূজার সাজপোশাকে বিশ্ব ফ্যাশনের একটা প্রভাব দেখা যায়। পোশাকের নকশায় ফিউশনের সাথে মোটিফে পূজার নানা অনুষঙ্গের ব্যবহার থাকছে। বিভিন্ন সংস্কৃত শব্দ আর বাক্য, স্বস্তিকা, বেলপাতা, চক্রসহ দুর্গাপূজার আরো নানা অনুষঙ্গের থিম ব্যবহার করা হয়। সালোয়ার-কামিজ বা কুর্তা পরতে পারেন। সারা দিনের ঘোরাঘুরিতে আরাম দেবে পালাজ্জো আর কামিজ। পোশাক বাছাইয়ে খেয়াল রাখুন মানানসই আর স্বাচ্ছন্দ্যবোধ। কামিজের ছাঁটে স্ট্রেট লাইন এখন খুবই জনপ্রিয়। ঢিলেঢালা স্লিভলেস কুর্তিও দিনের বেলায় দারুণ স্বাচ্ছন্দ্য দেবে।

তাঁতের শাড়িতে এসেছে রকমারি বুনন নকশা। ব্লক, হ্যান্ডপেইন্ট, এমব্রয়ডারি, স্ক্রিন প্রিন্ট, স্টিচের নকশাদার তাঁতের সুতির শাড়ির আবেদন বরাবরই। ষষ্ঠীতে হালকা ছাপার সুতি শাড়ি বা একরঙা পাড় বা পাড় ছাড়া ভেজিটেবল ডাইয়ের শাড়ি পরতে পারেন। সপ্তমীতে বেছে নিন কাতান, অরগ্যান্ডি সিল্ক, তসর, অ্যান্ডি বা কোটার শাড়ি। জামদানি, মসলিন বা সিল্কের শাড়িও পরতে পারেন। আঁচলে ভারী কাজ আছে এ রকম লাল পাড়ের শাড়ি এক প্যাঁচ করে পরতে পারেন। লাল-সাদা গারদ শাড়ি ঐতিহ্য ফুটিয়ে তুলবে দশমীর যথাযথ লুক। 

পূজার শাড়িতে রঙ হিসেবে সাদা-লালের পাশাপাশি মেরুন, নীল, হলুদ, বাসন্তী, সবুজসহ সব জীবন্ত রঙের ব্যবহার সবচেয়ে বেশি হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh