টিকার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ওপর আস্থা রাখুন : কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

করোনা টিকা সংগ্রহের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) চট্টগ্রাম সড়ক জোন, বিআরটিসি ও বিআরটিএ কর্মকর্তাদের সঙ্গে  মতবিনিময় সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

কাদের বলেন, ‘করোনার ভ্যাকসিন সংগ্রহের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রাখুন। তার দক্ষ ও মানবিক নেতৃত্বে প্রথম ডোজের মতো দ্বিতীয় ডোজের ভ্যাকসিনও বাংলাদেশ সময়মতো সংগ্রহ করবে।

‘ভ্যাকসিন সংগ্রহে সরকারের সদিচ্ছা ও আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি নেই। যারা ভ্যাকসিন নিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের মনের কথা হচ্ছে বাংলাদেশ যেন ভ্যাকসিন না পায়। তারা দেশ ও জনগণের স্বার্থপরিপন্থি বক্তব্য ও কাজে সিদ্ধহস্ত, যা এরই মধ্যে প্রমাণিত।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকারের শিকড় এ দেশের মাটির অনেক গভীরে। সরকারের জনভিত্তি ঠিকই আছে, তবে গত এক যুগ ধরে বিএনপির নানা আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থতার মধ্য দিয়ে জনগণ প্রমাণ করেছে তারা প্রকৃতপক্ষে জনবিচ্ছিন্ন।

‘বিএনপির রাজনীতির শিকড় বাংলাদেশের মাটির গভীরে নয়, অন্য কোথাও। বিশ্বের সমৃদ্ধ দেশগুলোও যখন সংকট মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে। ভ্যাকসিন, আইসিইউ, অক্সিজেন নিয়ে সংকট তৈরি না করে সবাই স্বাস্থ্যবিধির প্রতি আরও মনোযোগী হওয়া উচিত।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ভ্যাকসিন নিলে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, তাই মাস্ক ও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে না, এসব কথা যারা ভাবেন তারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। সংক্রমণ রোধে দলমতনির্বিশেষে সর্বোচ্চ মনোযোগী এবং ঘরে ঘরে সমালোচনার পরিবর্তে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তুলতে হবে।’

একপর্যায় হেফাজত নেতাদের গ্রেফতার প্রসঙ্গ উঠে আসে ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যে। তিনি বলেন, ‘কোনো আলেম-ওলামা নয়, এমনকি বিএনপির কোনো নেতাকেও গ্রেফতার করেনি সরকার। যারা আগুন-সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত তাদের ভিডিও ফুটেজ দেখে গ্রেফতার করা হয়েছে।

‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ভিডিও দেখে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা অপরাধীদের গ্রেফতার করেছে। এখানে কল্পকাহিনি তৈরির কোনো সুযোগ নেই।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা, হাটহাজারী, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে নারকীয় তাণ্ডব চালানো হয়েছে। এখন দিবালোকের মতো স্পষ্ট যে, সন্ত্রাস আড়াল করে সন্ত্রাসীদের বাঁচাতে বিএনপিই মনগড়া কল্পকাহিনি তৈরির অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।

‘১৫ আগস্ট, ৩ নভেম্বর, তথাকথিত ৭ নভেম্বর এবং ২১ আগস্ট ঘটিয়ে চক্রান্তের পথে ক্ষমতায় যাওয়ার দিন শেষ। ক্ষমতায় যেতে হলে নির্বাচনের বিকল্প নেই, তাই আগামী নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।’

এ সময় সড়ক বিভাগের কমকর্তাদের চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক চার লেনের কাজ দ্রুত শেষ করার আহ্বান জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। পাশাপাশি পার্বত্য চট্টগ্রামের সড়কেও গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh