নারী কনস্টেবল ধর্ষণ: এসআই মিজানুলকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার কনস্টেবল হালিমা খাতুনকে ধর্ষণ ও আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় এসআই মিজানুল ইসলামের খালাসের বিরুদ্ধে আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এসআই মিজানুলকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আপিল আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী চঞ্চল কুমার বিশ্বাস।

২০১৭ সালের ২ এপ্রিল বিকেলে গৌরীপুর থানার ব্যারাকে নিজ কক্ষে দরজা বন্ধ করে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন কনস্টেবল হালিমা খাতুন। সহকর্মীরা তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পাঠান। সেখান থেকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। পরে ওই ঘটনায় হালিমার বাবা হেলাল উদ্দিন আকন্দ একই থানার এসআই মিজানুল ইসলামের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়, মিজানুল ইসলাম ধর্ষণ করার কারণে হালিমা আত্মহত্যা করেছেন।

এদিকে ঘটনার পর সংবাদ সম্মেলন করেন হালিমার বাবা হেলাল উদ্দিন আকন্দ। সেখানে তিনি মেয়ের ডায়েরিতে থাকা কিছু লেখা সাংবাদিকদের দেখান। ডায়েরিতে তার মৃত্যুর জন্য মিজানুল ইসলাম দায়ী লেখা ছিল বলে তার বাবা উল্লেখ করেন।

এরপর বিচার শেষে ‘নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ এর ৯(১) ও ৯ (ক) ধারায় অভিযোগ প্রসিকিউশন পক্ষ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়ায়’ চলতি বছরের ৯ মার্চ ময়মনসিংহের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল মিজানুল ইসলামকে খালাস দিয়ে রায় প্রদান করে।

ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল আবেদন জানান হালিমার বাবা হেলাল উদ্দিন আকন্দ। আবেদনটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে আসামি মিজানুল ইসলামকে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দিলেন হাইকোর্ট।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh