সাহিত্যচর্চা

সুস্থ বিনোদনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সাহিত্যচর্চা। প্রমথ চৌধুরী বলেছেন, ‘সাহিত্যের উদ্দেশ্য সকলকে আনন্দ দেওয়া, কারো মনোরঞ্জন করা নয়।’ অর্থাৎ সাহিত্যচর্চার মাধ্যমে আনন্দ লাভের পাশাপাশি শাশ্বত সত্যকে উপলব্ধি করা সম্ভব। পার্থিব জীবনে উন্নতির জন্য বিজ্ঞানচর্চার প্রয়োজন রয়েছে, কিন্তু মানসিক উন্নতির জন্য সাহিত্যচর্চা অত্যাবশ্যক। বর্তমান সমাজে ইভটিজিং, হত্যা, ধর্ষণ প্রভৃতি বেড়েই চলেছে। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া কিশোর-কিশোরীরা গ্যাং গড়ে তুলছে। এমনকি এসব গ্যাংয়ের সদস্যরা হত্যার মতো অপরাধও করছে। তাদের এমন পরিণতি জাতির জন্য অশনিসংকেত। পড়ালেখায় মনোযোগ না দিয়ে ঘণ্টার পা ঘণ্টা ফেসবুকে সময় নষ্ট করা কিংবা অন্যান্য প্রযুক্তির অপব্যবহার করা এ অবস্থার জন্য অনেকাংশে দায়ী। এ অবস্থায়, কিশোর-কিশোরী ও যুবসমাজের মানসিক ও নৈতিক উন্নতির জন্য সাহিত্যচর্চা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। শিশুকাল থেকেই সাহিত্যচর্চা ও বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এক্ষেত্রে বাবা-মা এবং শিক্ষকই পারেন তাদেরকে উৎসাহ দিতে। আর এভাবেই সুস্থ মস্তিষ্কের, বিবেকবান ও জ্ঞানানুরাগী ভবিষ্যত প্রজন্ম গড়ে উঠবে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh