বেসরকারি শিক্ষকদের ঝুলে থাকা পদোন্নতি প্রসঙ্গে

সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন। ফাইল ছবি

সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন। ফাইল ছবি

পাঁচ লাখেরও অধিক বেসরকারি শিক্ষকরা যেন বিচ্ছিন্ন মানুষ, তাদের দাবিগুলো সব সময় উপেক্ষিত। অথচ এ স্থাপত্য বিনির্মাণের মহান কারিগর শিক্ষকরাই নীরবে জাতির উন্নয়ন অগ্রগতিতে ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন। তারা শুধু শ্রেণী কক্ষে পাঠদান করান না, আদমশুমারি থেকে শুরু করে ভোটার লিস্ট তৈরি ও ভোট গ্রহণসহ জাতীয় যে কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজে শিক্ষকদের রয়েছে নিরলসভাবে অংশগ্রহণ।

বলা হয়ে থাকে- বেসরকারি শিক্ষকগণ সরকার থেকে শতভাগ বেতন পান। এটা হাস্যকর ছাড়া আর কিছু নয়। সর্বশেষ বেতনস্কেলে দেরিতে অন্তঃভুক্তি, প্রবৃদ্ধি ও দুই বছর পর দেয়াসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা না থাকার কারণে একজন সরকারি পিয়নের বেতন বেসরকারি স্কুল শিক্ষকের চাইতে বেশি।মেডিকেল ভাতা সরকারিরা পান ১৫০০ টাকা আর বেসরকারি শিক্ষকরা পান মাত্র ৫০০ টাকা। আর একহাজার টাকার ভাতা দিয়ে কোথাও বাড়ি ভাড়া পাওয়া যায় কি না জানা নেই। 

বেসরকারি শিক্ষকদের সবচেয়ে বেশী যন্ত্রণা তাদের চাকরির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য প্রমোশন নেই। বর্তমান নীতিমালাতে পদোন্নতি কথা উল্লেখ থাকলেও এখনো পর্যন্ত নীতি বাস্তবায়নে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ নেই। লাইব্রেরিয়ানকে তড়িগড়ি করে শিক্ষক পদবী দেয়া হলো। অন্যদিকে আবার স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের পদোন্নতি আটকিয়ে রাখা হলো! ইন্টারমিডিয়েট পর্যায়ে সহকারী অধ্যাপক পদ বিলুপ্তি ঘোষণা করে আবার পূর্বের অর্জিত সহকারী অধ্যাপক পদ বহাল রাখার নিয়ম- এখানেও বড় ধরণের হ-য-ব-র-ল অবস্থা।

একজন শিক্ষক হিসেবে আমি মনে করি, জৈষ্ঠ্য প্রভাষক পদ দিয়ে তাদের আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত সহকারী অধ্যাপকের পদ কেড়ে নেয়া কোনো যুক্তির মধ্যে পড়ে না। একই প্রতিষ্ঠানে সমযোগ্যতার কেউ জৈষ্ঠ্য প্রভাষক আবার কেউ সহকারী অধ্যাপক এটি বেসরকারি শিক্ষকদের সাথে এক ধরনের তামাশা ছাড়া আর কিছু না! 

আবার ডিগ্রি কলেজে প্রভাষক প্রমোশন পেলে তাদের নাম সহকারী অধ্যাপক আর ইন্টারমিডিয়েট কলেজে প্রভাষক পদোন্নতি পেলে তারা হবেন জৈষ্ঠ্য প্রভাষক। এই বৈষম্যমূলক নীতিতে বেসরকারি শিক্ষকদের জীবনে অন্ধকার নেমে আসবে। আমাদের অর্জিত অধিকার সহকারী অধ্যাপকের পদ কেড়ে নেয়া যাবে না। অবিলম্বে সহকারী অধ্যাপকের পদ বহাল রেখে নীতিমালা সংশোধন করে দ্রুত বাস্তবায়ন করা হোক।

-সহকারী অধ্যাপক

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //