ইউরেনিয়ামের মজুত ২০ শতাংশ বাড়ালো ইরান

ইউরেনিয়ামের মজুত ২০ শতাংশ বাড়ালো ইরান। এর ফলে পরমাণু অস্ত্র তৈরিতে আর কোনো সমস্যা থাকলো না দেশটির।

গতকাল সোমবার (৪ জানুয়ারি) থেকে ইরান ২০ শতাংশ অতিরিক্ত ইউরেনিয়াম মজুত করতে শুরু করেছে বলে দেশটির সরকারি মুখপাত্র আলি রাবেই জানিয়েছেন। 

এরফলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার বিদায়ের আগে ইরানের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক আরো তলানিতে গিয়ে ঠেকলো। 

ইরানের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে ২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি হত্যা করা হয়েছিল। ইরানের অভিযোগ ছিল, এই হত্যার পিছনে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের হাত আছে। শুধু তাই নয়, তদন্ত কমিটির বক্তব্য, জার্মানিসহ বিশ্বের বহু দেশ এই হত্যাকাণ্ডের ষড়যন্ত্রে জড়িত। ওই হত্যাকাণ্ডের পরেই ইরান ঘোষণা করেছিল, তারা বদলা নেবে। মাসখানেক আগে আরো একটি হত্যাকাণ্ড ঘটে। অত্যাধুনিক পদ্ধতিতে স্বয়ংক্রিয় মেশিনগানের সাহায্যে হত্যা করা হয় ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীকে। ওই ঘটনাতেও ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে ইরান। 

এর কিছুদিনের মধ্যেই ইরানের পার্লামেন্ট একটি নতুন আইন করে। যেখানে বলা হয়, ইরান এবার ২০ শতাংশ ইউরেনিয়াম মজুত করতে পারবে। কোনো ওয়াচডগ অর্থাৎ জাতিসংঘের সংস্থাকে পরমাণু কেন্দ্র দেখতে দেয়া হবে না।

গতকাল থেকে আইন মেনে ইউরেনিয়ামের মজুত শুরু হলো। এর আগেও একবার ইরান এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তারপরেই রাতারাতি ২০১৫ সালে ইরানের সাথে পরমাণু চুক্তি করা হয়েছিল। ২০১৮ সালে ট্রাম্প সেই চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নেন। ইরানের উপর একাধিক নিষেধাজ্ঞাও জারি করেন। তারপর থেকেই নতুন করে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ইরানের সম্পর্ক উদ্বেগজনক হতে শুরু করে।

সোমবার ইরানের সরকারি মুখপাত্র জানিয়েছেন, মাটির নিচে গোপন পরমাণু কেন্দ্রে নতুন করে ইউরেনিয়ামের মজুত শুরু হয়েছে। এর ফলে পরমাণু অস্ত্র তৈরিতে আর কোনো সমস্যা থাকলো না। -ডয়চে ভেলে

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh