ফিলিস্তিনকে মেয়াদোত্তীর্ণ টিকা দিতে চেয়েছিল ইসরায়েল

পশ্চিম তীরে এক ব্যক্তিকে করোনার টিকা দেয়া হচ্ছে। ছবি : নিউইয়র্ক টাইমস

পশ্চিম তীরে এক ব্যক্তিকে করোনার টিকা দেয়া হচ্ছে। ছবি : নিউইয়র্ক টাইমস

ফাইজারের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকার ১০ লাখ ডোজ ফিলিস্তিনকে শর্তসাপেক্ষে দিতে চেয়েছিল ইসরায়েল। চুক্তি অনুযায়ী, এ বছরের শেষ দিকে ফিলিস্তিন টিকা পাওয়া মাত্রই সমান পরিমাণ টিকা ইসরায়েলকে ফেরত দিতে হবে।

ওই ফাইজার-বায়োএনটেকের ডোজগুলোর মেয়াদ কিছুদিনের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। তার আগেই ফিলিস্তিনকে ডোজগুলো সরবরাহ করবে ইসরায়েল। বিনিময়ে ফিলিস্তিন ফাইজারের কাছ থেকে ভ্যাকসিন পাওয়া মাত্রই সমান পরিমাণ ভ্যাকসিন ইসরায়েলকে ফেরত দেবে। 

তবে গতকাল শুক্রবার (১৮ জুন) টিকার প্রথম চালান পাওয়ার পর করোনার টিকা নিয়ে চুক্তিটি বাতিল করেছে ফিলিস্তিন। কারণ ডোজগেুলোর মেয়াদ চুক্তি যে মেয়াদ উল্লেখ ছিল তার আগেই শেষ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাই আলকাইলা।

তিনি বলেন, তারা বলেছিলেন- ডোজগুলোর মেয়াদ জুলাই বা আগস্ট পর্যন্ত আছে; তবে টিকা পাওয়ায় পর দেখা গেছে এর মেয়াদ জুনেই শেষ। এগুলো ব্যবহারের পর্যাপ্ত সময় নেই, তাই আমরা তা বাতিল করেছি।

টিকাগুলো পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকার লোকজনকে দিতে চেয়েছিল ফিলিস্তিন।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের এক মুখপাত্র বলেছেন, ডোজগুলোর মেয়াদ ইস্যুতে আমরা এই চুক্তি বাতিল করেছি এবং টিকার প্রাথমিক চালানের ৯০ হাজার ডোজ ইসরায়েলের কাছে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী নাফটালি বেনেটের কার্যালয় এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।   

গত রবিবার (১৩ জুন) বেনেট শপথ নেয়ার পর ফিলিস্তিন প্রশাসনের সাথে করোনার টিকা নিয়ে একটি চুক্তি হয়। তখন বেনেটের দফতর থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, চুক্তি অনুযায়ী- ফাইজারের ১০ থেকে ১৪ লাখ টিকার ডোজ ফিলিস্তিনকে দেয়া হবে। এর পরিবর্তে ফাইজারের যে ১০ লাখ ডোজ টিকা ফিলিস্তিনকে দেয়ার কথা রয়েছে, সেগুলো ইসরায়েলকে দেয়া হবে। চলতি বছর সেপ্টেম্বর-অক্টোবরের দিকে ইসরায়েল ওই টিকাগুলো পাবে। ইতিমধ্যে প্রায় ৫৫ শতাংশ ইসরায়েলি ফাইজার-বায়োএনটেকের দুই ডোজ টিকাই পেয়েছেন।

ফিলিস্তিনিরা ইতিমধ্যে ইসরায়েলের পাশাপাশি রাশিয়া, চীন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কোভ্যাক্স কর্মসূচি থেকে স্বল্প পরিমাণে ভ্যাকসিনের ডোজ পেয়েছেন।

ফিলিস্তিনি কর্মকর্তাদের মতে, ইসরায়েল অধিকৃত পশ্চিম তীরে ও গাজায় প্রায় ৩০ শতাংশ ফিলিস্তিনি টিকা পেয়েছেন, তাদের মধ্যে অধিকাংশই কেবল এক ডোজ টিকা পেয়েছেন।

ইসরায়েল অধিকৃত অঞ্চলগুলোতে ভ্যাকসিন কার্যক্রম অত্যন্ত ধীরগতিতে চলার কারণে জাতিসংঘসহ অন্যান্য মানবাধিকার সংস্থার সমালোচনার মুখে পড়েছে ইসরায়েল। - ডেইলি স্টার ও ফ্রান্স২৪

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //