মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে আল ফারুক ওমর আলখাত্তাব মসজিদে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করছেন মুসল্লিরা। ছবি: সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে আল ফারুক ওমর আলখাত্তাব মসজিদে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করছেন মুসল্লিরা। ছবি: সংগৃহীত

উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ত্যাগের মহিমায় সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়ার বিভিন্ন দেশ, এবং ইউরোপ-আমেরিকার অনেক দেশে মঙ্গলবার (২০ জুলাই) পবিত্র ঈদুল আজহা পালন করছে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ সেসব দেশের নাগরিকেরা। তবে, অন্যান্য বছরের মতো এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি।

সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী, স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদে মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা। নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

ফজরের নামাজ আদায়ের পরপর দল বেঁধে ঈদের জামায়াতে অংশ নিতে ঈদগাহ ময়দানের উদ্দেশে রওনা হন ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা।

মক্কার কাবা শরিফ, মদিনার মসজিদে নববীসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মসজিদে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় মসজিদের ভেতরে প্রথম সারিতে ঈদের নামাজ আদায় করেন সৌদি আরবের বেশ কয়েকজন আমির ও শেখরা।

এ বছর মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদীনার মসজিদে নববীতে ঈদের নামাজের ইমামতিতে ছিলেন যথাক্রমে শেখ বানদার বিন আবদুল আজিজ বালিলা ও শেখ আলী ইবনে আবদুর রহমান আল-হুজাইফি। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৬.০৫ মিনিটে মসজিদুল হারামে ঈদুল আজহার নামাজ পড়ান শেখ বানদার বিন আবদুল আজিজ বালিলা।

অপরদিকে, মসজিদে নববীতে স্থানীয় সময় ৫.৫৮ মিনিটে নামাজ শুরু করেন শেখ আলী ইবনে আবদুর রহমান আল-হুজাইফি।

ফিলিস্তিনের জেরুজালেমে পবিত্র আল আকসা মসজিদে সামনে সকালে জড়ো হন পশ্চিমতীরের মুসল্লিরা। আদায় করেন পবিত্র ঈদুল আজহার জামাত। ওই জামাতে অংশ নিতে দেখা গেছে হাজারো ফিলিস্তিনিকে।

এদিকে, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, কুয়েত, মিসর ও জর্ডানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হলেও উন্মুক্ত স্থানে খুতবা ও জামাত পড়া এবং কড়া স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা হয়। করোনা মহামারীর কারণে চারটি দেশ এবার ঈদুল আজহার জামাত বাতিল করেছে। দেশগুলো হলো মৌরিতানিয়া, মরক্কো, ওমান এবং তিউনিশিয়া।

এদিকে, মধ্যপ্রচ্যের বাইরেও ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াতে ঈদ উদযাপন হচ্ছে আজ। এ ছাড়া ইউরোপ আর আফ্রিকার কয়েকটি দেশেও ঈদ উদযাপন হচ্ছে।

নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের সতর্কতায় এ বছর করোনা প্রতিরোধী টিকা নেয়া মাত্র ৬০ হাজার আবেদনকারী হজের অনুমতি পেয়েছেন। সৌদি আরবের বাইরে থেকে এ বছরও কোনো আবেদনকারীকে হজে অংশ নেয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। শুধু ১৫-৬৫ বছর বয়সী সৌদি নাগরিক ও দেশটিতে বাস করা ১৫০ দেশের নাগরিক হজ করার সুযোগ পেয়েছেন।

হাজিরা পবিত্র মুজদালিফা ময়দানে খোলা আকাশের নিচে সারারাত এবাদত বন্দেগির পর আজ মঙ্গলবার সকালে ফজরের নামাজ আদায় করে মিনায় পৌঁছেছেন। প্রথম দিন শয়তানকে কংকর নিক্ষেপ করে পশু কোরবানি দিয়ে মাথা মুণ্ডন করে শেষ করবেন হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা। এরপর মক্কায় গিয়ে তাওয়াফে জিয়ারত শেষে আবার মিনায় ফিরে আসবেন হাজীগণ। এরপর পর্যায়ক্রমে আরও তিন দিন মিনায় অবস্থান করে শয়তানকে তিনটি পাথর নিক্ষেপ করবেন আগত হাজীরা।

এদিকে, অবৈধ বা অনুমতিপত্র ছাড়া হজে অংশগ্রহণ করার কারণে কয়েকশ স্থানীয় ও প্রবাসীকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আটক করা প্রবাসীরা কোন দেশের নাগরিক তা জানা যায়নি।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh