মিতা হকের দাফন সম্পন্ন

কেরানীগঞ্জে জানাজা শেষে বাবা-মায়ের কবরের পাশে শায়িত করা হয়েছে রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হককে। এর আগে বেলা ১১টায় তার মরদেহ ছায়ানট প্রাঙ্গনে নেয়া হলে সেখানে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে আসেন সংস্কৃতি অঙ্গনের অনেকে।

মিতা হক দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে তিনি ডায়ালাইসিস করাচ্ছিলেন। শনিবার শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে তাকে বাংলাদেশ স্পেশিয়ালাইজড হাসপাতালে নেয়া হয়। সকালে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

১৯৬২ সালে জন্মগ্রহণ করেন মিতা হক। তিনি প্রথমে তার চাচা ওয়াহিদুল হক ও পরে ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খান ও সনজীদা খাতুনের কাছে গান শেখেন। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি তবলাবাদক মোহাম্মদ হোসেন খানের কাছে গান শেখা শুরু করেন। ১৯৭৭ সাল থেকে নিয়মিত তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে সংগীত পরিবেশনা করতেন।

২০২০ সালে তিনি একুশে পদকে ভূষিত হন। মিতা হক ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। এরপর কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মিতা হককে বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার দেয়া হয়।

সংগীতশিল্পী মিতা হক অভিনেতা খালেদ খানের স্ত্রী। মেয়ে ফারহীন খান জয়ীতাও রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী। 

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh