ফ্লিনকে ক্ষমা করে দিলেন ট্রাম্প

মাইকেল ফ্লিন

মাইকেল ফ্লিন

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক লেফটন্যান্ট জেনারেল ও নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনকে ক্ষমা করে দিলেন বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সাথে আলোচনা ও সে বিষয়ে এফবিআই ও ট্রাম্প প্রশাসনকে মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগ ছিল ফ্লিনের বিরুদ্ধে। যে কারণে তাকে পদ থেকে সরিয়েও দিয়েছিলেন ট্রাম্প। বিদায়বেলায় ফ্লিনের সেই 'দোষ' ক্ষমা করে দিলেন প্রেসিডেন্ট। এরপর তার বিরুদ্ধে আর কোনো অভিযোগ থাকবে না।

ক্ষমা ঘোষণা করার পরে ট্রাম্প টুইট করে অভিনন্দন জানিয়েছেন ফ্লিন ও তার পরিবারকে। ফ্লিনও টুইট করেছেন বাইবেলের একটি অনুচ্ছেদ উদ্ধৃত করে।

ফ্লিনের সাথে ট্রাম্পের সম্পর্ক ছিল নাটকীয়। ডেমোক্র্যাটপন্থী হয়েও ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনের সময় প্রকাশ্যে ট্রাম্পকে সমর্থন করেছেন ফ্লিন। ট্রাম্পের সাথে তার ঘনিষ্ঠতা এতটাই বেড়েছিল যে, ভোটে জেতার পরের দিনই ফ্লিনের নাম নিজের নিরাপত্তা উপদেষ্টা এবং আন্তর্জাতিক বিষয় ও সামরিক ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্টের মুখ্য কাউন্সেলর হিসেবে ঘোষণা করেন ট্রাম্প। একাধিক অনুষ্ঠানে সে সময় তাদের একসাথে দেখা গেছে।

কিন্তু সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। চেয়ার পাওয়ার মাত্র ২৩ দিনের মাথায় ফ্লিনকে পদ থেকে সরিয়ে দেন ট্রাম্প। অভিযোগ, ওয়াশিংটনে রাশিয়ার প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠক করেছেন ফ্লিন। সেখানে রাশিয়ার উপর জারি করা মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে কথা হয়েছে। ফ্লিন সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। ট্রাম্প প্রশাসন সে সময় অভিযোগ করে, ফ্লিন ওই বৈঠকের বিষয়ে মার্কিন প্রশাসন ও এফবিআইয়ের কাছে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন।

২০১৭ সালে ফ্লিন দোষ কবুল করেন ও ক্ষমা প্রার্থনা করেন। যদিও ২০২০ সালের গোড়ায় ফ্লিন ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন তুলে নেন। তার সাথে অন্যায় হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ট্রাম্প ক্ষমা করে ফ্লিনের উপর থেকে সমস্ত অভিযোগ তুলে নিলেন।

ফ্লিনের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ রয়েছে। ২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার ভূমিকা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ করছেন ডেমোক্র্যাটরা। ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট মামলাতেও সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। ডেমোক্র্যাটদের অভিযোগ, সে ঘটনাতেও ফ্লিনের ভূমিকা ছিল। যদিও এখনো পর্যন্ত সেই মামলায় ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে কোনো তথ্য প্রমাণ মেলেনি।

সাংবিধানিকভাবেই মার্কিন প্রেসিডেন্টদের ক্ষমা করার অধিকার আছে। বারাক ওবামা আট বছরে ২১২ জনকে ক্ষমা করেছিলেন। চার বছরে ট্রাম্প ক্ষমা করেছেন ২৮ জনকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে সবচেয়ে কম ক্ষমা করেছেন ট্রাম্প। -ডয়চে ভেলে

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh