যা করতে এসেছিলাম, সেগুলো করেছি: বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই চার বছরের মেয়াদ শেষে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদ থেকে বিদায় নিচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। একইসাথে নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নিতে যাচ্ছেন জো বাইডেন। তার সাথে শপথ নেবেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস।

হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগে এক ভিডিও বার্তায় বিদায়ী ভাষণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, আমরা যা করতে এসেছিলাম, সেগুলো তো করেছিই। আরো অনেক কিছুই করেছি 

ইউটিউবে পোস্ট করা ওই ভিডিও বার্তায় ট্রাম্প বলেন, অনেক কঠিন লড়াইয়ের মোকাবিলা করেছি, সবচেয়ে শক্ত লড়াই... কারণ আপনারা আমাকে এজন্যই নির্বাচিত করেছিলেন।

গত নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বাইডেনের কাছে পরাজিত হলেও এখনো সেই ফলাফল পুরোপুরি মেনে নেননি ট্রাম্প। এমনকি তার এই ভিডিও বার্তায় তিনি উত্তরসূরির নামও উল্লেখ করেননি।

তবে ট্রাম্প নতুন প্রশাসনের সাফল্য কামনা করেন। নতুন প্রশাসনের জন্য সৌভাগ্য কামনা করেন। তিনি বলেন, সৌভাগ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ শব্দ!

ট্রাম্প ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পসহ তার পরিবারের সদস্য ও প্রশাসনের লোকজনকে ধন্যবাদ জানান। ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও তার পরিবারের সদস্যদের বিদায়ী শুভেচ্ছা জানান।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প মার্কিন জনগণের উদ্দেশে দেয়া শেষ বক্তৃতায় বলেন, আমি নিঃশঙ্ক ও আনন্দচিত্তে চলে যাচ্ছি। সর্বোচ্চ আশাবাদ নিয়ে বলছি, আমাদের দেশ ও সন্তানদের জন্য সেরাটা এখনো অর্জিত হয়নি। ঈশ্বর আপনাদের মঙ্গল করুন, ঈশ্বর যুক্তরাষ্ট্রের মঙ্গল করুন। 

এদিকে বাইডেন ও তার স্ত্রী জিল বাইডেন স্থানীয় সময় গতকাল মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) তাদের ডেলাওয়ারের বাসভবন ছেড়ে ওয়াশিংটনের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। ২০০৮ সালে বারাক ওবামার ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার আগে ৩৬ বছর ধরে সেনেটর থাকার সময় এখানেই থাকতেন বাইডেন।

একটি আবেগী বিদায়ী বার্তায় তিনি বলেন, যখন আমি মারা যাবো, ডেলাওয়ারের কথা আমার হৃদয়ে লেখা থাকবে।

আজ বুধবার (২০ জানুয়ারি) হোয়াইট হাউসে যাবেন বাইডেন। বাংলাদেশ সময় রাতের বেলায় ক্যাপিটল ভবনের সামনের চত্বরে তার অভিষেক অনুষ্ঠান হবে। তবে এর আগে আর কোনো অভিষেক অনুষ্ঠান এমনভাবে হয়নি।

ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার পর থেকে পুরো ওয়াশিংটন কড়া নিরাপত্তায় ঢেকে ফেলা হয়েছে। হাজার হাজার ন্যাশনাল গার্ড সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে ও হোয়াইট হাউসের চারদিকে ধাতব বেড়া দেয়া হয়েছে। সাধারণত যেখানে হাজার হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করে, সেখানে তার শপথ গ্রহণ দেখার জন্য গুটিকয়েক মানুষকে ক্যাপিটলের সামনের ন্যাশনাল মলে আসতে দেয়া হবে।

এদিকে এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে থাকছেন না বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও। ১৮৬৯ সালে সর্বশেষ অ্যান্ড্রু জনসনের পর এই প্রথম আবার এ ধরণের ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে। বুধবারই ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছেড়ে ফ্লোরিডায় তার অবকাশ যাপন কেন্দ্রের উদ্দেশে যাত্রা করবেন। 

তবে বিদায়ী ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে থাকছেন। - ইউএনবি ও বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh