জর্জ ফ্লয়েড হত্যায় শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত

জর্জ ফ্লয়েড ও ডেরেক শভিন

জর্জ ফ্লয়েড ও ডেরেক শভিন

যুক্তরাষ্ট্রের মিনেয়াপলিসে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যার দায়ে শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক শভিনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে জুরি।

তার বিরুদ্ধে আনা তিনটি অভিযোগই আদালতে প্রমাণিত হয়েছে। এর ফলে শভিনের ৪০ বছর কারাদণ্ড হতে পারে।

একদিনেরও কম সময় নিয়ে ১২ সদস্যের জুরি প্যানেল গতকাল মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) মামলাটির রায় ঘোষণা করেন।

গত বছর মে মাসে জাল নোট ব্যবহারের অভিযোগে গ্রেফতারের পর ফ্লয়েডের ঘাড়ে শভিনের (৪৫) হাঁটু গেড়ে বসে থাকার ৯ মিনিটের ভিডিও সাড়া বিশ্বে  সমালোচনার ঝড় তুলে। সেসময় ফ্লয়েড বারবারই ‘আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না’ বলে আকুতি জানালেও তা আমলে নেননি পুলিশ সদস্যরা।


এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। একপর্যায়ে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ শিরোনামে এ আন্দোলন যুক্তরাষ্ট্রের সীমানা ছাড়িয়ে যায়।

নিরস্ত্র এ কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যুর মাসখানেক পর তার পরিবার শহর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করে। অত্যন্ত চাঞ্চল্যকর এ মামলায় তিন সপ্তাহের বিচার শেষে মঙ্গলবার রায় আসে।

আদালত রায় ঘোষণার সময় জানিয়েছেন, পরবর্তী আট সপ্তাহের মধ্যে শভিনের কারাদণ্ডাদেশ ঘোষণা করা হবে।

ডেরেক শভিন

সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মিনেসোটার হেনেপিন কাউন্টি আদালত তিনটি অভিযোগেই শভিনকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন। অভিযোগ তিনটি হচ্ছে- ‘সেকেন্ড ডিগ্রি’ অনিচ্ছাকৃত খুন, ‘থার্ড ডিগ্রি’ খুন ও ‘সেকেন্ড ডিগ্রি’ নরহত্যা। আইন অনুযায়ী ‘সেকেন্ড ডিগ্রি’ অনিচ্ছাকৃত খুনের জন্য সর্বোচ্চ ৪০ বছর কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়। ‘থার্ড ডিগ্রি’ খুনের জন্য সর্বোচ্চ কারাদণ্ড হয় ২৫ বছরের। অন্যদিকে ‘সেকেন্ড ডিগ্রি’ নরহত্যার দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ড বা ২০ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়।

গত সোমবার উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষ হলে জুরি প্যানেল রায়ের বিষয়ে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে একটি হোটেলে যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকেন। সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে না আসার আগে জুরি সদ্যরা বের হতে পারবে না বলে আগেই বলে দেয়া হয়। 

এদিকে রায় ঘোষণার সাথে সাথে আদালতের বাইরে কয়েকশ মানুষ উল্লাস প্রকাশ করেন। ন্যায়বিচার হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তারা।


ফ্লয়েডের পরিবারের আইনজীবী বেন ক্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এই রায় ‘যুগান্তকারী’। এক টুইটে তিনি বলেন, ‘অনেক বেদনার বিনিময়ে অর্জিত বিচার অবশেষে অর্জিত হলো। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জবাবদিহির প্রয়োজনীয়তার ক্ষেত্রে এটা স্পষ্ট বার্তা।

এ রায়ের পর এক টুইট বার্তায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা লিখেছেন, বিচারকেরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে যথাযথ ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে আরো বেশি কিছু প্রয়োজন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh