ব্যবসায়ীদের জন্য ঋণ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে: ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘গরিব মানুষের জন্য অনুদান নয়, ব্যবসায়ীদের জন্য ঋণ প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটা দিয়ে চলমান সংকট নিরসন হবে না।

রবিবার (৫ এপ্রিল) বিকেলে উত্তরায় নিজ বাসায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি দলের প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনটি বিএনপির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে সরাসরি প্রচার করা হয়।

মির্জা ফখফরুল বলেন, ‘আমরা আশা করেছিলাম আরো অ্যালাবোরেট কিছু করবেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু তা তিনি করেননি। তিনি অনেক বিষয় এড়িয়ে গেছেন। জাতি তার কাছে এমনটি আশা করেনি।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘লকডাউন অবশ্যই প্রয়োজন। এখনই পুরোদেশ লকডাউন করা দরকার। আমরা মনে করি, একাত্তরে যেভাবে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি, এবারো সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সংকট কাটিয়ে উঠতে পারব। তবে তার জন্য প্রয়োজন সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত।’

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা স্টেটমেন্ট দেয়ার পর প্রধানমন্ত্রী রেন্সপন্স করেছেন। এটা একটা ভালো দিক যে কিছুটা হলেও জনগণের কথা বুঝতে পারছেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য হলো, সাধারণ মানুষ, খেটে খাওয়া মানুষ, ইনফরমাল সেক্টরের কৃষকদের  কোনো কথা এখানে (প্রণোদনা প্যাকেজ) নেই। এখানে আমার কাছে যেটা মনে হয় যে, জনগণ বলবে ৭২ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে। দিয়েছে তো ঋণ, পুরোটাই ঋণ। এখানে অনুদান বলতে কিছু নেই। সব ঋণের প্যাকেজ।

খেটে খাওয়া মানুষের কথা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দিন আনে দিন খায় গরিব মানুষের জন্য আমরা সরকারকে ১৫ হাজার কোটি টাকা দেয়ার কথা বলেছিলাম। সুনির্দিষ্টভাবে বলেছিলাম এটা অনুদান দিতে হবে। আমরা বলেছি, ভাতা বাড়াতে, চিকিৎসক-নার্স, চিকিৎসাকর্মীদের প্রণোদনা দিতে হবে, স্বাস্থ্যখাতে প্রণোদনা বাড়াতে হবে। শুধু ঋণ নয়। এভাবে তাদের অনুদান, ভাতা, বেতন বাড়িয়ে সহযোগিতা করতে হবে। যে বিষয়গুলো অত্যন্ত জরুরি, সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সেভাবে কথা বলেননি। দিন আনে দিন খায় শ্রেণির মানুষের সংখ্যা বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি। আনফরচুনেটলি সেই সেক্টরের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের মধ্যে কোথাও, তার প্যাকেজের মধ্যে কোথাও সেই ধরনের কিছু আমরা দেখতে পাইনি। রেমিট্যান্স যারা পাঠান তাদের কোনো কথা এই প্রণোদনা প্যাকেজে নেই।

স্বাস্থ্যখাতের বিষয়ে প্যাকেজে কোনো কথা নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন,  হেলথ সেক্টরটা একেবারেই নেগলেটেড। কোনো কথাই বলা হয়নি এখানে। আপনার যেটা দরকার ‘পরীক্ষা পরীক্ষা পরীক্ষা’ বলেছেন ডাব্লিউএইচও প্রধান বলছেন। অথচ বাংলাদেশে এখন পরীক্ষা নেই, পরীক্ষা নেই, পরীক্ষা নেই অবস্থা দাঁড়িয়েছে। যেখানে যাবেন বলবে এখানে হবে না। ভেন্টিলেটর কত আছে আপনারা জানেন? আরো বেশি সেটা তৈরি করার কোনো কথা এখানে (প্রণোদনা প্যাকেজে) নেই।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh