মুজাক্কির-একরাম হত‌্যা একই সূত্রে গাঁথা: কাদের মির্জা

আবদুল কাদের মির্জা। ফাইল ছবি

আবদুল কাদের মির্জা। ফাইল ছবি

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির ও ফেনীর উপজেলা চেয়ারম্যান একরাম হত‌্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা।

তিনি বলেন, আমি মুজাক্কিরের হত্যার প্রতিবাদে আজ বিকেল ৩টায় রূপালী চত্ত্বরে শোক সভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করেছে। 

তিনি অভিযোগ করেন, অথচ আমার বাড়ির পাশে নিজাম হাজারি সমাবেশ ডেকেছে, চরকাঁকড়ার টেকের বাজারে মাইক লাগিয়েছে, সমাবেশ করার জন্য। প্রশাসন কিছুই করছে না।

আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে রূপালী চত্ত্বরের আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাই কাদের মির্জা বলেন, বাদল মুজাক্কিরকে হত্যা করে তাদের বাড়ি গিয়ে মায়া কান্না করা হচ্ছে। একই কায়দায় নিজাম হাজারি ফেনীর জনপ্রিয় উপজেলা চেয়ারম্যান একরামকে প্রকাশ‌্যে গুলি করে গাড়িতে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে হত্যা করেছে। তারপর একরামের বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে মায়া কান্না করেছে। এসব হত্যাকাণ্ড একই সুত্রে গাঁথা।

তিনি আরো বলেন, বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচন বাংলাদেশের ইতিহাসে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে। সে নির্বাচনে আমি বিপুল ভোটে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছি। এ কারণে দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছি। এরপর কোম্পানীগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়ার ঘোষণা দিয়েছি। জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে দলের লোকজন আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে।

আবদুল কাদের মির্জা ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল বসুরহাটে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা করায় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে ও জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় পুরো পৌরসভা এলাকায় আজ সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এ সময় সব ধরনের সভা-সমাবেশ এই এলাকায় নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh