‘কলকাঠি’ শামীম ওসমানের হাতে

কোনো প্রার্থী নন, তবুও নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে সবচেয়ে আলোচিত নাম শামীম ওসমান। তবে সংসদ সদস্য হওয়ায় তিনি প্রচারণায় অংশ নিতে পারছেন না। এক্ষেত্রে রয়েছে আইনি বাধা। এজন্যই নিরব আছেন নগরীর উত্তর পাড়ার এই বাসিন্দা। তবে নিরব থাকলেও এবারের সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী তাকে তৈমূরের মাস্টারমাইন্ড বলে উল্লেখ করেছেন।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জ উত্তর পাড়া কোন গাছে পানি দিবে? সিটি নির্বাচনে এটি মিলিয়ন ডলার প্রশ্ন। কারণ, নারায়ণগঞ্জ সিটির আওয়ামী লীগের রাজনৈতিতে দুটি গ্রুপ। উত্তর পাড়ার পৃষ্ঠপোষক ওসমান পরিবার। আর দক্ষিণ পাড়ায় প্রধান চুনকা পরিবার। দীর্ঘ বৈরিতার উত্তরাধিকার তাদের। এখন উত্তর পাড়ার বস শামীম ওসমান আর দক্ষিণ পাড়ায় সেলিনা হায়াৎ আইভী। ২০১১ সালের মেয়র নির্বাচনে এই বৈরিতা জাতীয় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠে। তখন বিএনপির সমর্থনে সেই বৈতরণি পার হয় আইভী রহমান। ২০১৬ সালের নির্বাচনে প্রকাশ্যে সমর্থন দিলেও রেষারেষি আছে এখনও।

সেলিনা হায়াৎ আইভির অভিযোগ, স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমূরের পিছনের কারিগর শামীম ওসমান। যাতে ঘি ঢেলেছে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। তবে মেয়র প্রার্থী না হয়েও ওসমান পরিবারকে নিয়ে কেন এতো টানাহেঁচড়া ?

নারায়ণগঞ্জ তোলারাম কলেজের অধ্যাপক শাহ আল বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটিতে রয়েছে দুটি সংসদীয় আসন। দুটি আসনেরই সাংসদ, উত্তর পাড়ার দুইভাই। সিদ্দিরগঞ্জ-ফতুল্লায় শামীম ওসমান। আর বন্দর ও শহরে সেলিম ওসমান।

আমরা নারায়ণগঞ্জবাসি সংগঠনের সভাপতি নাসির উদ্দীন মন্টু বলেন, সিটি করপোরেশন এলাকায় এই দুইজনের ভোট ব্যাংক প্রায় এক লাখ। তাই মেয়র হতে হলে উত্তর পাড়ার ভোট সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।

জানা গেছে, দুই একদিনের মধ্যেই নিরবতা ভাঙবেন শামীম ওসমান। তখন কোন পক্ষে যাবেন তিনি সেটাই এখন প্রশ্ন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //