টিএসসিতে ছাত্রদলকে পেটালো ছাত্রলীগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

আজ রবিবার (২২ মে) সন্ধ্যায় টিএসসির বাইরের চত্বরের পশ্চিম পাশে এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের হামলায় আহতদের মধ্যে রয়েছেন ঢাবি ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মানসুরা আলম ও জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রদলের কর্মী আতিক মুর্শেদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা টিএসসির বটতলার দিকে আড্ডা দিচ্ছিলেন। এখানে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা নিয়মিত আড্ডা দেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পায়রা চত্বরের দিকে ছিলেন। হঠাৎ ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেন। এসময় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রতিরোধ না করেই টিএসসির বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে যান। ছাত্রদলের কয়েকজন ঢাবি সাংবাদিক সমিতির দিকে আশ্রয় নিতে গেলে সেখানেও হামলার শিকার হন তারা।

হামলার পর বিভিন্ন হল থেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লাঠি, স্ট্যাম্প নিয়ে টিএসসিতে জড়ো হন। ছাত্রদলের ওপর হামলার পক্ষে স্লোগান দেন তারা। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা টিএসসিতে অবস্থান করছিলেন।

হামলার বিষয়ে ছাত্রদল নেত্রী মানসুরা আলম বলেন, টিএসসিতে বিনা উসকানিতে আমাদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা আতিককে হেলমেট দিয়ে পিটিয়েছে। লাঠিসোটা নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করে। আমাকেও মারধর করে তারা।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক আক্তার হোসেন বলেন, ছাত্রলীগ আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের ৭-৮ নেতাকর্মী আহত হয়। সবচেয়ে গুরুতর আহত আতিক মোর্শেদ। সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। আমরা হামলার প্রতিবাদে কর্মসূচি দেবো।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ কর্মীদের হামলার অভিযোগের বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি সরাসরি কোনো উত্তর দেননি।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রদলের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক শিক্ষার পরিবেশ ব্যাহত হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যলয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে এক ধরণের অনিরাপত্তা বোধ রয়েছে যে, তাদের স্বাভাবিক শিক্ষার পরিবেশ অব্যাহত থাকবে কি না।

তিনি বলেন, ‘যে ভাষায় ছাত্রদল রাজনীতি করে আমরা মনে করি এটি তাদের এইট পাশ প্রধানমন্ত্রী এবং ইন্টারমিডিয়েট পাশ না করা বর্তমান কো-ভাইস চেয়ারম্যানের উপযুক্ত বক্তব্যই তাদের অশ্লীল অশ্রাব্য বক্তব্যের মাধ্যমে প্রকাশ পাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে সাধারণ শিক্ষার্থীরা যদি সংঘবদ্ধ প্রতিবাদ করে সেটিকে আমরা স্বাগত জানাই।’

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //