বরিশাল সদর উপজেলা বিএনপির কমিটি গঠন

জেলার আহ্বায়ক ও সদস্য সচিবের ছবিতে ঝাড়ুপেটা

দীর্ঘ ১৪ বছর পর বরিশাল সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে দক্ষিণ জেলা কমিটি। সাবেক জামাত নেতা মো. নুরুল আমিনকে আহ্বায়ক এবং রফিকুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে এ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। গত বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান নান্টু ও সদস্য সচিব এ্যাডভোকেট আকতার হোসেন মেবুল এই কমিটি অনুমোদন দেন।

এদিকে, আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার তিন দিনের মাথায় এ কমিটি বাতিল ও জেলা বিএনপির পুনর্গঠনের দাবি তুলেছেন সদর উপজেলা বিএনপির পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এনিয়ে আজ শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টার দিকে বরিশাল রিপোর্টাস ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করেন তারা। বঞ্চিতদের পক্ষে সদ্য ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটির এক নম্বর সদস্য জিয়াউল ইসলাম সাবু এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

তবে নিজেকে কমিটির আহ্বায়ক প্রার্থী দাবি করা জিয়াউল ইসলাম সাবু আহ্বায়ক না হতে পেরে দলের সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামে তার ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। দলীয় একাধিক নেতাই বলছেন, বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামে সবচেয়ে পিছিয়ে থাকা নেতাকর্মীদের তালিকায় রয়েছেন জিয়াউল ইসলাম সাবু।

অন্যদিকে, পদবঞ্চিত নেতারা অভিযোগ করেন, বর্তমান সময়ে বিএনপির কমিটিতে নিষ্ক্রিয় ও আওয়ামী লীগের সাথে আঁতাত করে চলা ব্যক্তিদের কদর বেশি। সুবিধাবাদী এসব নেতাদের অর্থের কাছে পরাজিত হচ্ছেন ত্যাগী নেতারা। সদর উপজেলা বিএনপির কমিটি গঠনের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি বঞ্চিত নেতাদের।

উল্লেখ্য, সংবাদ সম্মেলন শেষে আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন বঞ্চিত নেতাকর্মী ও তাদের সমর্থকরা। এসময় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান নান্টু ও সদস্য সচিব এ্যাডভোকেট আক্তার হোসেন মেবুলের ছবিতে ঝাড়ুপেটা করেন তারা। পরবর্তীতে তারা বিক্ষোভ করে বরিশাল জেলা ও মহানগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে সদ্য ঘোষিত আহবায়ক কমিটির এক নম্বর সদস্য জিয়াউল ইসলাম সাবু লিখিত বক্তব্যে বলেন, জেলা বিএনপির আহবায়ক এ্যাড. মুজিবুর রহমান নান্টু ও সদস্য সচিব বরিশাল সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাডভোকেট কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চুর সাথে কোন প্রকার আলোচনা না করে এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট বিলকিছ জাহান শিরীন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান ও মাহবুবুল হক নান্নুসহ বিভিন্ন নেতাদের অনুরোধ ও পরামর্শ উপেক্ষা করে অসাংগঠনিকভাবে কমিটি বিলুপ্ত করেন। বিষয়টি নিয়ে এ্যাডভোকেট কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চু দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, মহাসচিব, বরিশাল বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সভাপতি আ. আউয়াল মিন্টু, বিভাগীয় সাংগঠনিক ও সহ সাংগঠনিক সম্পাদকদের নিকট লিখিতভাবে অভিযোগ করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে আ. আউয়াল মিন্টু মহাসচিবের বরাতে বরিশাল সদর উপজেলা কমিটি করার লিখিত নির্দেশ দেন। কিন্তু নির্দেশ অমান্য করে তাদের সাথে পরামর্শ না করে গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাত ১২টার দিকে বরিশাল জেলা বিএনপির আহবায়ক এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান নান্টু ফেসবুকে বরিশাল সদর উপজেলা বিএনপির কমিটি ঘোষণা করেন।

এসময় তিনি বলেন, মুজিবুর রহমান নান্টু ক্ষমতার অপব্যবহার করে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে অগণতান্ত্রিকভাবে সদর উপজেলার সাবেক কমিটির কারো সাথে পরামর্শ বা মতামত না নিয়ে অস্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় একটি হাস্যকর কমিটি ঘোষণা করেন।

সাবু বলেন, বিতর্কিত আহবায়ক কমিটিতে অনেক অঙ্গ সংগঠনের লোকদের সদস্য করা হয়েছে যাদের অনেককে আমরা চিনি না। কমিটিতে অনেককে যথাযথ স্থানে না রেখে জুনিয়র সদস্যদের নিচে নাম লেখা হয়েছে। এমনকি সদর উপজেলা বিএনপির সদস্যও নন এমন একজন ব্যক্তি যিনি জামায়েত ইসলামী দল থেকে বহিষ্কার হয়েছেন সেই নুরুল ইসলামকে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক করা হয়েছে। আর যিনি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর নৌকা প্রতীকের প্রধান এজেন্ট ছিলেন তাকে সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে। 

এসময় তিনি সদর উপজেলা কমিটি বাতিলের পাশাপাশি বরিশাল জেলার (দক্ষিণ) কমিটি পুনর্গঠনের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে সদর উপজেলা বিএনপির সদ্য সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চু, সদ্য ঘোষিত কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মন্টু খান, সদস্য মামুন অর রশিদ, আনোয়ার হোসেন, আব্দুর জব্বার শিকদারসহ সদর উপজেলার বঞ্চিত নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

অভিযোগের বিষয় জানতে চাইলে দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক এ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান নান্টু বলেন, যে কেউ প্রতিবাদ করতে পারেন। এটা তাদের অধিকার। দল যাদেরকে যোগ্য মনে করেছে তাদেরকে নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। আমি এর বাইরে কোন মন্তব্য করতে চাই না।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //