ছেলের বটির কোপে মায়ের মাথা বিচ্ছিন্ন

ফেনী প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৯ জানুয়ারি ২০২২, ০৭:০৬ পিএম | আপডেট: ০৯ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:৪৮ পিএম

অভিযুক্ত নুর করিম রাসেল। ছবি: সংগৃহীত

অভিযুক্ত নুর করিম রাসেল। ছবি: সংগৃহীত

ফেনীর সোনাগাজীতে মাদক কেনার টাকা না পেয়ে ধারালো বটি দিয়ে কুপিয়ে মায়ের মাথা বিচ্ছিন্ন করেছেন নুর করিম রাসেল নামের এক যুবক।

রবিবার (৯ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার চরছান্দিয়া ইউনিয়নের পূর্ব বড়ধলী গ্রামের মানিক্কা মিয়াজি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা অভিযুক্ত নুর করিম রাসেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় মায়ের মরদেহটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

নিহতের নাম আমেনা বেগম। তিনি ওই বাড়ির মৃত সাহাব উদ্দিনের স্ত্রী।

মানিক্কা মিয়াজি বাড়ির বাসিন্দারা জানান, আমেনা খাতুন তার ছেলে নুর করিম রাসেলকে নিয়ে মৃত স্বামীর বাড়িতেই বসবাস করতেন। ছেলে কাজ না করায় আমেনা বেগম গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে কাজ করে সংসারের খরচ চালাতেন। কয়েক বছর ধরে রাসেল মাদকাসক্ত হয়ে অনেকটা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। রাসেল প্রায়ই মাদক কেনার জন্য তার মায়ের কাছে টাকা দাবি করতেন। এ নিয়ে মা-ছেলের মাঝে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।

বিকেলে আমেনা বেগম ভাত রান্না করছিলেন। এ সময় তার কাছে মাদক কেনার জন্য টাকা দাবি করেন ছেলে রাসেল। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে রাসেল ক্ষিপ্ত হয়ে বটি দিয়ে তার মাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করেন। পরে তিনি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে এলাকাবাসী তাকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম বলেন, নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য ফেনীর আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh