ইবির হলে শিক্ষার্থীদের বরাদ্দকৃত সিটে উঠতে ছাত্রলীগের বাধা

ইবি প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৮ মার্চ ২০২২, ০৮:৩৯ পিএম | আপডেট: ২৮ মার্চ ২০২২, ০৮:৫০ পিএম

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ হলের প্রভোস্ট কর্তৃক বরাদ্দকৃত সিটে উঠতে গিয়ে ছাত্রলীগ কর্মীদের বাধার সম্মুখীন হয়েছে শিক্ষার্থীরা। এসময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের ‘হল চালায় ছাত্রলীগ’ বলে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

আজ সোমবার (২৮ মার্চ) হলের প্রভোস্ট ও আবাসিক শিক্ষকরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের হলে উঠার নির্দেশনা দেয়। সেই মোতাবেক শিক্ষার্থীরা বরাদ্দকৃত স্ব-স্ব রুমে উঠতে গিয়েও ব্যর্থ হয়েছে।

জানা যায়, গত দুই মাস আগে আবাসিক সিটের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয় লালন শাহ হল কর্তৃপক্ষ। পরে শিক্ষার্থীরা আবাসিকতার জন্য দুই হাজারের অধিক টাকা দিয়ে আবেদন করে। তার প্রেক্ষিতে হল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের আবাসিক সিট বরাদ্দ দেয়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা কক্ষগুলোতে উঠতে গিয়ে কয়েক দফায় ব্যর্থ হয়েছে। 

পরে প্রভোস্ট বরাবর তারা লিখিত অভিযোগ দেয়। এর প্রেক্ষিতে হল কর্তৃপক্ষ ও একজন সহকারী প্রক্টরের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের বরাদ্দকৃত সিটগুলোতে উঠার অনুমতি দেয়। সে অনুযায়ী আল হাদীস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্সের এক শিক্ষার্থী ৪০৪ নম্বর কক্ষে উঠতে যায়। এসময় রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ইফতেখার আরিফ ও ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের হাসিব বাধা দেয়। একইসাথে বলে ‘হল চালায় ছাত্রলীগ’ হলে উঠতে গেলে ছাত্রলীগের অনুমতি নিয়ে উঠতে হবে। ফলে সিটগুলোতে ওঠা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে হলে আবাসিক সিট প্রাপ্ত একাধিক শিক্ষার্থী বলেন ,‘অনেক কষ্ট করে আমরা আবাসিকতার জন্য টাকা দিয়েছিলাম। কিন্তু এক মাস ঘুরেও সিটে উঠতে পারিনি। প্রভোস্ট অনুমতি দিলেও এখন তা সম্ভব হচ্ছে না।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইফতেখার আরিফের সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও পাওয়া যায় নি। অন্যদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী হাসিব বিষয়টি অস্বীকার করেছে।’

এ বিষয়ে হলটির দায়িত্বে থাকা ছাত্রলীগ নেতা আলামিন জোয়ার্দার বলেন, ‘আমি হল প্রভোস্টের সাথে কথা বলেছিলাম, যাতে আবাসিকতা প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারে। হলটিতে ছাত্রলীগের কয়েকটি গ্রুপ রয়েছে। এগুলো কারা করছে তা আমার জানা নেই।’

হলটির প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. ওবাইদুল ইসলাম বলেন, ‘অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের হল থেকে নেমে যাওয়ার জন্য প্রায় ১০ বার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আবাসিক শিক্ষার্থী হলে উঠতে গিয়ে বাঁধাপ্রাপ্ত হলে বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh