থানায় অভিযোগ করায় প্রকাশ্যে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২২ মে ২০২২, ১১:৫৪ এএম | আপডেট: ২২ মে ২০২২, ১১:৫৬ এএম

নিহত ব্যবসায়ী মো.আইমন (২০)। ছবি : নোয়াখালী প্রতিনিধি

নিহত ব্যবসায়ী মো.আইমন (২০)। ছবি : নোয়াখালী প্রতিনিধি

চাঁদা দাবির ঘটনায় থানায় অভিযোগ করায় জেল থেকে বেরিয়ে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় এক ব্যবসায়ীকে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। গতকাল শনিবার (২১ মে) রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের ডিবি রোডের হোসেন সুপার মার্কেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক পুলিশ চৌমুহনী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল হাই মিলনের ছেলে মো. পাভেল, একই ওয়ার্ডের বাচ্চু মিয়ার ছেলে মো. রাকিব (২০) ও আজাদ মিয়ার ছেলে রিমনকে আটক করে।

নিহত ব্যবসায়ী মো.আইমন (২০) উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের গণিপুর এলাকার নুরনবীল ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেগমগঞ্জ সার্কেল) নাজমুল হাসান রাজিব।

তিনি বলেন, আইমন চৌমুহনী বাজারে খোলা জায়গায় জুতার ব্যবসা করতের। আর রাকিব তার সহযোগীদের নিয়ে তিন মাস আগে আইমনের কাছে চাঁদা দাবি করে। তখন আইমন থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে পুলিশ আইমনের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রাকিবকে ইয়াবাসহ আটক করে কারাগারে পাঠায়। 

তিনি আরো বলেন, এরপর তিন মাস জেল খেটে রাকিব গত বৃহস্পতিবার (১৯ মে) জামিনে বের হয়। জামিনে বের হয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য রাকিব তার সহযোগে পাভেল ও রিমন গতকাল রাত পৌনে ৮টার দিকে আইমনকে চৌমুহনী বাজারের ডিবি রোডের হোসেন মার্কেটের সামনে গতিরোধ করে। ওই সময় কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে তারা আইমনকে গলায় ছুরিকাঘাত করে। এসময় গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে লাইফ কেয়ার হসপিটালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যায়।

আইমনকে এভাবে প্রকাশ্যে হত্যার পর হাতবোমা ফাটিয়ে আতঙ্ক তৈরি করে খুনিরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ীরা তাৎক্ষণিকভাবে বিক্ষোভ শুরু করেন এবং প্রায় আধা ঘণ্টা চৌমুহনী-ফেনী আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন।

আইমনের মা রাতেই বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান রাজিব আরো জানায়, ঘটনার পরপরই তিন ঘাতক পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ হত্যাকাণ্ডের আধাঘণ্টার মধ্যে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে একটি জায়গা থেকে তাদের আটক করে এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছোরা উদ্ধার করে। 

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh