সিলেট ডুবেছে চেরাপুঞ্জির ৩ দিনের বৃষ্টিতে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশ: ১৭ জুন ২০২২, ০৭:৫৩ পিএম

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের চেরাপুঞ্জি বিশ্বের সবচেয়ে বৃষ্টিপ্রবণ এলাকা। সেখানে টানা তিনদিনের বৃষ্টিতেই তলিয়ে গেছে বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলা।

গত তিন দিনে আসাম ও মেঘালয়ে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টি হয়েছে, যা গত ২৭ বছরের মধ্যে তিন দিনে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের রেকর্ড। প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট ঢল ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় সব জেলায় প্রবেশ করেছে।

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি আর্দ্র স্থানগুলোর একটি চেরাপুঞ্জি। স্থানীয় আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে চলতি জুনে শুক্রবার পর্যন্ত সর্বমোট প্রায় ৪ হাজার ৮১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এর আগে, গত মঙ্গলবার চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৬৭ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার, পরদিন বুধবার ৮১ দশমিক ১ সেন্টিমিটার এবং গত বৃহস্পতিবার রেকর্ড করা হয়েছে ৬২ দশমিক ৬ সেন্টিমিটার।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের (আইএমডি) বরাত দিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, চেরাপুঞ্জিতে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৯৭২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে, এই বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বিগত ১২২ বছরের মধ্যে ৩য় সর্বোচ্চ।

এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৫ সালে ১৬ জুন ১৫৬ দশমিক ৩ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল চেরাপুঞ্জিতে।

এদিকে, চেরাপুঞ্জির ভাটিতে থাকা বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের প্রায় কয়েকটি জেলার বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর পানি সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১০৮ সেন্টিমিটার, সিলেটে ৭০ সেন্টিমিটার এবং সুনামগঞ্জে ১২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছিল।

আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গে ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।

সে কারণে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোণা জেলার বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে পূর্বাভাসে।

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh